আজ বুধবার , ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

এম্বুলেন্সে করে মাদক পাচারকালে ২৪০ বোতল ভারতীয় মদসহ একজন আটক এমপি মাহমুদুল হক সায়েমকে সি.আই.পি শামিমের সংবর্ধনা হালুয়াঘাটে ঈদে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হল স্বামীসহ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালুয়াঘাটের স্থলবন্দর দিয়ে ২৭টি পণ্যের আমদানী রপ্তানীর পরিকল্পনা-এমপি সায়েম হালুয়াঘাটে ২৭ হাজার দুস্থ অসহায় পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ১৩ বছর পর পদত্যাগ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হালুয়াঘাটে ফেইসবুক গ্রুপে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতা। পুরস্কার বিতরণ ‘কৃষ্ণনগরের কৃষ্ণকেশীর ‘বেহিসেবি রঙ.. হিমাদ্রিশেখর সরকার হালুয়াঘাট থেকে ফুলপুর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণসহ সড়ানো হচ্ছে অস্থায়ী বাস কাউন্টার জনগণের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি রাজপথে থাকবে-প্রিন্স ডামি নির্বাচন করে গণতন্ত্রকে আইসিইউতে পাঠিয়েছে আওয়ামী লীগ-প্রিন্স বাজারে পণ্যের অগ্নিমূল্যের তাপ তাদের গায়ে লাগেনা-প্রিন্স নালিতাবাড়ীতে প্রেসক্লাবের নির্বাচন, সভাপতি সোহেল সম্পাদক মনির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে-বিএনপি নেতা প্রিন্স হালুয়াঘাটে বিএনপি নেতা প্রিন্স’র লিফলেট বিতরণ

আজও আটক হয়নি হালুয়াঘাটে দুই খুনের কোন অপরাধীই

প্রকাশিতঃ ৪:১২ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৫, ২০২৩ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ১৭৪ বার

ওমর ফারুক সমনঃ
গত ১৫ মার্চ ও ২৯ মার্চ রাতে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে গলাকেটে ও কুপিয়ে নৃশংসভাবে দুই যুবক খুনের ঘটনার এক মাসের অধিক সময় পেরিয়ে গেলেও পৃথক দুই খুনের রহস্য উন্মোচন হয়নি আজও। কোন অপরাধীকেই আটক করতে পারেনি আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।ফলে নিহতের দুই পরিবারের পরিবারের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে হতাশা আর ক্ষোভ। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, খুব গুরুত্ব সহকারে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন, খুব শীগ্রই অপরাধীদের চিহ্নিত করে আটক করতে পারবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তারা। সুত্রে জানা যায়, গত মার্চের ১৫ তারিখ রাতে ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালাতে গিয়ে ঘর থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন উপজেলার ব্যাপারিপাড়া এলাকার সারোয়ারের হোসেন (৩৮) নামে এক যুবক। নিঁখোজের একদিন পর তার গলাকাটা লাশ পাওয়া যায় উওর গোবড়াকুড়া সীমান্তের ইন্ডিয়া সীমানায় নদীর বালুর চরে।পরে বিজিবি বিএসএফ’র পতাকা বৈঠকের মধ্য দিয়ে দীর্ঘ সময় পর পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করে পুলিশ। একই মাসের ২৯ তারিখ রাতে বালিচান্দা গ্রামের বাদশা মিয়া (২৮) নামে এক অটোচালক অটো চালাতে গিয়ে নিখোঁজ হন। পরদিন ৩০ মার্চ সকালে ৩নং কৈচাপুর ইউনিয়নের আতকাপাড়া ব্রীজ (বড়দাসপাড়া সড়ক) সংলগ্ন এলাকা থেকে তার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়।ছিনিয়ে নিয়ে যায় অটো রিক্সাটি। পৃথক পৃথক দুটি খুনের ঘটনারই অজ্ঞাত নামা আসামী দিয়ে হালুয়াঘাট থানায় মামলা রুজো হয়।
ক্লুলেস দুই হত্যাকান্ড নিয়ে শুরু হয় ব্যপক আলোচনা আর সমালোচনা। নিহত সারোয়ারের স্ত্রী সরুফা আক্তার বলেন, দুই গারো যুবককে ভাড়ায় নিয়ে সীমান্তে গিয়েছিলেন সারোয়ার। আর সেখানে গিয়ে তাদের হাতেই খুন হন তিনি। তবে কে এই গারো যুবক তাদের পরিচয় জানেননা সারোয়ারের পরিবার। তবে সম্প্রতি সময়ে সারোয়ার খুনের সাথে জড়িত থাকতে পারে উত্তর গোবড়াকুড়া সীমান্তের রুবাতের পুত্র হংকন রুরাম (২৫) ও রঞ্জনের পুত্র পেলিমন (৩২) নামে দুই গারো যুবক এমন অভিযোগ তুলেছেন সারোয়ারের শশুর সরফত আলী। কেন জড়িত থাকতে পারে এমন প্রশ্নে সরফত আলী (৫০) বলেন, সারোয়ার খুন হওয়ার পর থেকেই এরা দু’জনেই গা ঢাকা দিয়েছে। ইন্ডিয়া চলে গেছে।এদের দুইজনকে আটক করার দাবী জানান তিনি।এদিকে পেলিমনের পিতা রঞ্জন (৫৫) বলেন, ছেলে কোথায় আছে জানা নেই, হঠাৎ করে কাউকে কিছু না বলে মাস খানেক পুর্বে বাড়ি ছেড়েছেন। অপরদিকে হংকনের মাতা অর্চনা বলেন, হংকন ঢাকায় চাকরি করেন। তার সাথে মায়ের যোগাযোগ রয়েছে। পেলিমনের কাকা বিক্রম ত্রিপুরা বলেন, পেলিমন সারোয়ার খুনের পর থেকেই ভয়ে বাড়ী ছেড়েছে। তবে এ ঘটনার সাথে জড়িত নেই বলে দাবী পরিবারের সদস্যদের। অপরদিকে অটো চালক বাদশা মিয়া খুনের ঘটনায়ও মনিকুড়া গ্রামের মঞ্জুরুল নামে একজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন। মঞ্জুরুলের কাছ থেকে খুন হওয়ার কয়েক দিন আগে অটো রিক্সাটি কিনেছিলেন বাদশা মিয়া। কিছু টাকাও বাকী ছিলো। অটো কিনলেও তার কোন কাগজ দেয়া হয়নি বলে জানান নিহত বাদশার মাতা লাইলী আঞ্জুমানারা। বাদশার কাছে দশ হাজার টাকা পাওনা ছিল মঞ্জুরুলের। এ ঘটনায় মঞ্জুরুলের জড়িত থাকতে পারে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে দাবী তুলা হয়। মঞ্জুরুলের সাথে কথা বললে তিনি জানান, টাকা বাকী রেখেই মঞ্জুরুলকে অটোর কাগজ বুঝিয়ে দিয়েছেন। তাকে সন্দেহ করার কোন যুক্তিই নেই। হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুজ্জামান খান বলেন, আমরা পুলিশসহ আইন শৃঙ্খলার বিভিন্ন বাহিনী এ দুটি হত্যকান্ড নিয়ে কাজ করছে। দ্রুতই অপরাধীদের চিহ্নিত করে আটক করা সম্ভব হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।###

Shares