আজ বুধবার , ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

এম্বুলেন্সে করে মাদক পাচারকালে ২৪০ বোতল ভারতীয় মদসহ একজন আটক এমপি মাহমুদুল হক সায়েমকে সি.আই.পি শামিমের সংবর্ধনা হালুয়াঘাটে ঈদে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হল স্বামীসহ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালুয়াঘাটের স্থলবন্দর দিয়ে ২৭টি পণ্যের আমদানী রপ্তানীর পরিকল্পনা-এমপি সায়েম হালুয়াঘাটে ২৭ হাজার দুস্থ অসহায় পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ১৩ বছর পর পদত্যাগ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হালুয়াঘাটে ফেইসবুক গ্রুপে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতা। পুরস্কার বিতরণ ‘কৃষ্ণনগরের কৃষ্ণকেশীর ‘বেহিসেবি রঙ.. হিমাদ্রিশেখর সরকার হালুয়াঘাট থেকে ফুলপুর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণসহ সড়ানো হচ্ছে অস্থায়ী বাস কাউন্টার জনগণের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি রাজপথে থাকবে-প্রিন্স ডামি নির্বাচন করে গণতন্ত্রকে আইসিইউতে পাঠিয়েছে আওয়ামী লীগ-প্রিন্স বাজারে পণ্যের অগ্নিমূল্যের তাপ তাদের গায়ে লাগেনা-প্রিন্স নালিতাবাড়ীতে প্রেসক্লাবের নির্বাচন, সভাপতি সোহেল সম্পাদক মনির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে-বিএনপি নেতা প্রিন্স হালুয়াঘাটে বিএনপি নেতা প্রিন্স’র লিফলেট বিতরণ

হালুয়াঘাটে বিএনপি’র বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ

প্রকাশিতঃ ৭:০৫ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৩৩০ বার

স্টাফ রিপোর্টারঃ ঢাকায় মোমবাতি প্রজ্জ্বলন অবস্থান কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগের হামলা ও নেতাকর্মীদের রক্তাক্ত করার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়ে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেছেন , মোমবাতি জ্বালাতেই যদি আওয়ামী লীগের বুকে আগুনের তাপ লাগে ,তবে সেদিন বেশী দুরে নয়, মশাল জ্বাললে সরকার পুরে ছারখার হয়ে যাবে। তিনি বলেন, মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ,অবস্থান বা মিছিল,সমাবেশের মতো শান্তিপূর্ণ ও নিরীহ কর্মসূচিতে ভয় পেয়ে নির্লজ্জের মতো সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে প্রমাণ করেছে তারা জনবিচ্ছিন্ন এবং ফ্যাসিস্ট । সরকার সন্ত্রাসী কায়দায় আন্দোলন দমন করতে নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছে । আন্দোন রক্তাক্ত করে নিজেদের পতন ত্বরান্বিত করছে। সন্ত্রাস,নৈরাজ করে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে পরবে না। প্রতিটি রক্তের ফোটা, হামলা,হত্যা,লাশের জবাব নেয়া হবে। এমরান সালেহ প্রিন্স আজ রবিবার বিকেলে হালুয়াঘাটে বিএনপির প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখছিলেন। চলমান আন্দোলনে পুলিশ ও আওয়ামী লীগের হামলার বিরুদ্ধে দেশব্যাপী আজ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় । প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি বলেন, জনবিচ্ছিন্ন সরকার গণ বিক্ষোভে ভীত হয়ে বেসামাল আচরণ করছে । সন্ত্রাসের ভাষায় কথা বলছে, মাস্তানতন্ত্র কায়েম করে সংঘাত উস্কে দিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায় । এসব করে কোনও লাভ হবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, জনগণ তাদেরকে লাল কার্ড দেখানো শুরু করেছে । এজন্য বিদেশীদের সহযোগিতায় ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য বিভিন্ন অজুহাতে বিদেশে দৌড়-ঝাপ শুরু করেছে।বিদেশীদের কাছে সরকারের দুর্ণীতি,দু:শাসন এবং গণতন্ত্র ,ভোটাধিকার ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের ইতিহাস উন্মোচিত হওয়ায় তারাও সরকার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে । তিনি তীব্র অর্থনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে বিশাল লটবহর নিয়ে রাষ্ট্রের টাকা অপচয় করে ১৫ দিনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর বৃটেন,আমেরিকা সফরের সমালোচনা করে বলেন, এই সফরেও দেশ ও জনগণের প্রাপ্তি শূন্য হলেও তিনি নিজে ক্ষমতায় টিকে থাকতে দহরম মহরম করতে গেছেন। এই সফর মূলত ‘ প্লেজার ট্রিপে ‘ পরিণত হয়েছে।প্রধানমন্ত্রীর ভাড়া করা বিমান লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরে অবতারণের অনুমতি দেয়া হয় নাই উল্লেখ করে তিনি বলেন, রাণীর অন্তষ্টিক্রিয়ায় বৃটেনের আমন্ত্রণেই যদি প্রধানমন্ত্রীর সফর হয়ে থাকে তবে অন্যান্য রাষ্ট্র নেতাদের বিমান অবতরণ করলেও কেনো তার বিমান সেখানে অবতারণ করার অনুমতি পায় নাই ? বেসরকারী অন্য এভিয়েশনের নামে অতিরিক্ত অর্ধশত কোটি টাকা ফি দিয়ে লন্ডন থেকে অর্ধশত কিলোমিটার দূরে অন্য বিমানবন্দরে কেন অবতারণ করতে হলো,এই প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, জনগণের দুঃসময়ে জনগণের টাকা অপচয় না করে জনদুর্ভোগ নিরসনে ব্যায় করলে জনগণ উপকৃত হতো। জনগণের সরকার নয় বলে তারা জনসমস্যা নিরসনে উদ্যোগী না হয়ে জনদুর্ভোগ সৃস্টি করেছে বলে তিনি প্রতিবাদ সমাবেশে উল্লেখ করেন । আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ আত্মস্বীকৃত বিদেশ নির্ভর দল। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বার বার তা প্রমান করেছে। তারা বিদেশ নির্ভর ,বিএনপি জননির্ভর দল। তিনি হামলা,মামলা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এক জায়গায় হামলা হলে ১০০ জায়গায় ,১০০ জায়গায় হামলা হলে ১০০০ জায়গায় বিক্ষোভ হবে । পেশী ও রাষ্ট্রীয় শক্তি দিয়ে আন্দোলন দমন করতে চাইলে ভয়াবহ পরিণতির জন্য সরকারকেই দায়ী থাকতে হবে । হালুয়াঘাট ঊপজেলা বিএনপির প্রতিবাদ সমাবেশের পূর্বে এমরান সালেহ প্রিন্স এর নেতৃত্বে বিরাট বিক্ষোভ মিছিল পৌর শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ডে দলীয় কার্যালয় থেকে বের হয়ে থানা রোড,ইউএনও কার্যালয়,হাসপাতাল মোড়,সাব রেজেষ্ট্রারী অফিস হয়ে শহীদ স্মৃতি কলেজ গেইটে যেয়ে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। প্রতিবাদ সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে হালুয়াঘাট উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আসলাম মিয়া বাবুল,হানিফ মো:শাকের উল্লাহ,আবদুল হাই,নাদিম আহম্মদ,আবু হাসনাত বদরুল কবির, ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক আমজাদ আলী ,আবদুল হামিদ,আলী আশরাফ, আলমগীর আলম বিপ্লব , উপজেলা বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান মিজান, কাজী ফরিদ আহমেদ পলাশ,অধ্যাপক মোফাজ্জল হোসেন ,রমজান আলী,এ্যড.আবুল কালাম আজাদ,মনিরুজ্জামান স্বাধীন ,ময়মনসিংহ উত্তর জেলা যুবদলের সহ সভাপতি আবদুল আজিজ খান ,জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক হোসনে আরা নীলু,জেলা ছাত্র দলের সিনিয়র সহ সভাপতি আসাদুজ্জামান আসিফ ,,উপজেলা কৃষক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ,,সাধারণ সম্পাদক আবদুল হান্নান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক রুহুল আমিন খান, সদস্য সচিব আলিমুজ্জামান আলিম,পৌর আহ্বায়ক মেহেদী হাসান দুলাল,সদস্য সচিব আসাদুজ্জামান সুজন,উপজেলা শ্রমিক দলের সভাপতি আবদুল গণি,সাধারণ সম্পাদক মশিউজ্জামান,উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক নাইমুর আরেফিন পাপন, পৌর সদস্য সচিব তাজবীর হোসেন অন্তর , তাঁতী দলের আহ্বায়ক আকিকুল ইসলাম ,সদস্য সচিব আলী আজগর ,মৎস্যজীবী দলের আহ্বায়ক মোশাররফ হোসেন ,জাসাস আহ্বায়ক রাশেদ আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। ###

Shares