আজ মঙ্গলবার , ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

এমপি মাহমুদুল হক সায়েমকে সি.আই.পি শামিমের সংবর্ধনা হালুয়াঘাটে ঈদে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হল স্বামীসহ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালুয়াঘাটের স্থলবন্দর দিয়ে ২৭টি পণ্যের আমদানী রপ্তানীর পরিকল্পনা-এমপি সায়েম হালুয়াঘাটে ২৭ হাজার দুস্থ অসহায় পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ১৩ বছর পর পদত্যাগ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হালুয়াঘাটে ফেইসবুক গ্রুপে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতা। পুরস্কার বিতরণ ‘কৃষ্ণনগরের কৃষ্ণকেশীর ‘বেহিসেবি রঙ.. হিমাদ্রিশেখর সরকার হালুয়াঘাট থেকে ফুলপুর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণসহ সড়ানো হচ্ছে অস্থায়ী বাস কাউন্টার জনগণের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি রাজপথে থাকবে-প্রিন্স ডামি নির্বাচন করে গণতন্ত্রকে আইসিইউতে পাঠিয়েছে আওয়ামী লীগ-প্রিন্স বাজারে পণ্যের অগ্নিমূল্যের তাপ তাদের গায়ে লাগেনা-প্রিন্স নালিতাবাড়ীতে প্রেসক্লাবের নির্বাচন, সভাপতি সোহেল সম্পাদক মনির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে-বিএনপি নেতা প্রিন্স হালুয়াঘাটে বিএনপি নেতা প্রিন্স’র লিফলেট বিতরণ ৯৮ দিন কারাভোগের পর নিজ এলাকায় বিএনপি নেতা প্রিন্সকে সংবর্ধনা

নালিতাবাড়ী কর্মজীবী মহিলা হোস্টেলে অবস্থান কর্মসূচি পালিত

প্রকাশিতঃ ৭:০৫ অপরাহ্ণ | জুন ১৪, ২০২৩ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৮৭ বার

মোঃ দৌলত হোসেন নালিতাবাড়ী: বুধবার (১৪ জুন) দুপুরে শেরপুরের নালিতাবাড়ী শহরের ‘কর্মজীবি মহিলা হোস্টেল কাম ট্রেনিং সেন্টারে’ এ কর্মসূচী পালন করা হয়।
এসময় সহকারী হোস্টেল সুপার পলি আক্তার, হর্টিকালচার ট্রেড প্রশিক্ষক স্মৃতি রাণী, খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ ট্রেড প্রশিক্ষক সার্থী আক্তার, হিসাব সহকারী সুরমা সরকারসহ অন্যান্য ট্রেডের প্রশিক্ষক এবং অন্যান্য কর্মচারীরা অবস্থান কর্মসূচীতে অংশ নেন।
সূত্র জানায়, ২০১২ সালে শিশু ও মহিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে মহিলা অধিদপ্তরের আওতায় ‘কর্মজীবি মহিলা হোস্টেল কাম ট্রেনিং সেন্টার’ এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়। অবকাঠামোগত কাজ শেষে তৎকালীণ মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকী ও তৎকালীন কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এটি উদ্বোধন করেন। ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে নার্সারী/হর্টিকালচার, কৃষি যন্ত্রপাতি মেরামতকরণ, খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ, ইলেকট্রনিক্স এসেম্বিলিং টেকনিশিয়ান, ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল সুইং অপারেটর এবং ইলেকট্রিশিয়ান ও হাউজ ওয়্যারিং মিলে ৬টি ট্রেডে বেকার নারীদের নিয়ে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হয়। তিন মাস মেয়াদী প্রতিটি ট্রেডে ১০ জন করে প্রতি সেশনে ৬০ জন করে ২০১৯ সালের জুন পর্যন্ত ১ হাজার ২০ জন নারী প্রশিক্ষণার্থী, প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। এর মধ্যে ২২৫ জন নারী বিভিন্ন কোম্পানীতে চাকরী করে তাদের বেকারত্ব গুচিয়েছেন। কম্পিউটার ও বিউটিফিকেশন এ দুটি ট্রেডের যন্ত্রপাতি আনা হলেও প্রশিক্ষক নিয়োগ না থাকায় তা চালু হয়নি।

২০১৯ সালের জুনে প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নিয়োগপ্রাপ্ত উপ-পরিচালককে অন্য মন্ত্রণালয়ে বদলী করার পর থেকে হোস্টেল কাম প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি অভিভাবকহীন হয়ে পড়ে। প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি না পাওয়ায় বন্ধ হয়ে যায় হাজারো বেকার নারীর কর্মসংস্থান তৈরির প্রশিক্ষণ কার্যক্রম। বন্ধ হয়ে যায় কর্মরত ১৯ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেতন-ভাতা। ফলে পরিবার-পরিজন নিয়ে তারা মানবেতর জীবন-যাপন শুরু করেন। বর্তমানে ৬ তলা বিশিষ্ট আধুনিক এ হোস্টেল ভবন ছাড়াও বিভিন্ন ট্রেডের মূল্যবান যন্ত্রাংশ ও ফার্নিচার নষ্ট হতে চলেছে।

প্রশিক্ষক সাথী আক্তার জানান, শত শত বেকার ও অল্প শিক্ষিত নারী এখান থেকে হাতেকলমে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে নিজেরা দক্ষ হয়েছেন। অনেকেই চাকরী করে বেকারত্ব গুচিয়েছেন। প্রকল্প পুনরায় চালু না হওয়ায় ও মেয়াদ বৃদ্ধি না পাওয়ায় নারীদের এ অগ্রযাত্রা ব্যহত হচ্ছে। আমরাও বেকার হয়ে পড়েছি।

প্রশিক্ষক স্মৃতি রানী জানান, নালিতাবাড়ী তথা শেরপুর জেলার পিছিয়ে পড়া নারী জনগোষ্ঠীর প্রশিক্ষণের এ কেন্দ্রটি বন্ধ হওয়ায় আমরা অসহায় হয়ে পড়েছি। বর্তমানে চাকুরীতে আবেদনের বয়সও নেই। এখন আমরা যাব কোথায়?

সহকারী হোস্টেল সুপার পলি আক্তার জানান, দেশে মোট ৮টি ‘কর্মজীবি মহিলা হোস্টেল কাম ট্রেনিং সেন্টার’ রয়েছে। অন্যগুলোর কার্যক্রম চালু রয়ে গেলেও নালিতাবাড়ীর এ কেন্দ্রটি চার বছর ধরে বন্ধ রয়েছে। ফলে কোটি কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হচ্ছে। আমরাও মানবেতর জীবন-যাপন করছি।

Shares