আজ শনিবার , ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা বাউফলে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালিত হালুয়াঘাটে ঐতিহাসিক তেলিখালী যুদ্ধ দিবস উদযাপন বাউফলে যুবদলের ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পলিত নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার বিচারের দাবীতে আজ মানববন্ধন হালুয়াঘাটের শিমুলকুচি গ্রামে কামাল’র কুলখানি অনুষ্ঠিত হালুয়াঘাটে বৃদ্ধকে নির্যাতনের ঘটনায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ হালুয়াঘাটের ট্রলি উল্টে দুই বন্দর শ্রমিকের মৃত্যু, আহত ৬ মাছ ধরার জালে ঢিল ছোড়ায় খুন হন শিশু শিক্ষার্থী সুমন হালুয়াঘাটে ১ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে কুপিয়ে খুন এমপি’র কাছে নালিশ করায় বৃদ্ধকে পিটিয়েছে চেয়ারম্যান হালুয়াঘাটে প্রতারিত শত শত কৃষক

বাউফলে এক সুপারের বিরুদ্ধে মাদ্রাসার নামে জমি দখলের অভিযোগ

প্রকাশিতঃ ১১:১৯ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ০৮, ২০১৯ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৩১০ বার

তোফাজ্জেল হোসেন,বাউফল(পটুয়াখালী)সংবাদদাতা: প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ও মাদ্রাসার নাম ব্যবহার করে জমি দখল করার উদ্দ্যোশে নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অফিস কক্ষের দরজা ও আলমিরা ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে এক মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে। ওই ব্যাক্তি হলেন পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার রহমতনগর ইসলামিয়া দাখিল মাদ্র্রাসার সুপার আতিকুর রহমান। আজ সোমবার বেলা ১১ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রামনগর গ্রামের আলী আকবর মুন্সি গংদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের আমিনুল ইসলাম রেদওয়ান গংদের ৭৪ শতাংশ জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। কয়েকদিন পূর্বে ওই বিরোধপূর্ন জমি দখল করার উদ্দ্যেশে রহমতনগর ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার নির্ধারিত জমি লিখে একটি সাইনবোর্ড লাগায় রেদওয়ানের ভাই ওই মাদ্রাসার সুপার আতিক। অথচ ওই জমি নিয়ে আদালতে মামলা চলছে। আদালতে ফয়সালা না হওয়া পর্যন্ত ওই জমি কোন পক্ষ ভোগ দখল করতে পারবে না আদালতের এমন নিষেধাজ্ঞাও রয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে মুন্সি আলী আকবর ওই জমির সাইনবোর্ড ভেঙ্গে ফেলে দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ওই মাদ্রসার সভাপতি রেদওয়ানের নির্দেশে সুপার নিজেই নিজ প্রতিষ্ঠানের অফিস কক্ষের দরজা ও কাঠের আলমিরা ভেঙ্গে ফেলে ।
আলী আকবর মুন্সি বলেন, ক্রয় ও ওয়ারিশ সূত্রে ওই জমির মালিক আমরা। আমাদের এক ওয়ারিশের কাছ থেকে রেদওয়ান ৩৩ শতাংশ জমি ক্রয় করেন। অথচ মাদ্রাসার নাম দিয়ে তারা ভোগ দখল করার চষ্টা করছে ৭৪ শতাংশ জমি। এতে বাধা দিলে সুপার আমাদেরকে ফাঁসাতে নিজেই মাদ্রার আফিস কক্ষের দরজা ও আলমিরা ভেঙ্গে হয়রানি মুলক মামলা করার পায়তারা করছে। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেন সুপার আতিকুর রহমান বলেন, আলী আকবর মুন্সি নিজেই মাদ্রাসার অফিস কক্ষের দরজা ও জানালা ভেঙ্গেছে।
বাউফল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।

Shares