আজ মঙ্গলবার , ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

ভালুকায় সাংবাদিক নিগ্রহের বিচার দাবিতে মানববন্ধন রিফাত হত্যা রায় ৩০ সেপ্টেম্বর ! মিন্নির সাজা হবে কি? টাংগাইল সদরের (বুরো এনজিও) কর্মকর্তা খুন। মতলব উত্তরে আধুনিক প্রযুক্তিতে বীজ উৎপাদন সংরক্ষনে মাঠ দিবস অনুষ্টিত টাংগাইলে জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান লিটন কে কুপিয়ে হত্যা চেস্টা। টাংগাইলে চতুর্থ শ্রেণির (১০) এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা। রাঙ্গাবালীতে বিয়ের প্রতিশ্রæতিতে প্রতারণার অভিযোগ, চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হালুয়াঘাটে বিজিবি’র পিটুনিতে আহত-১ প্রশ্নবিদ্ধ টি.এইচ.ও ডা. সোহেলী শারমিন! কোটি টাকার দূর্ণীতির নেপথ্যে–? হালুয়াঘাটে নারী সোর্স সুমিসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ বাউফলে এক ব্যক্তির চোখ উৎপাটন হালুয়াঘাটে সুমী’র অপকর্ম ফাঁস! প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৮২৭ রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের স্বঘোষিত সভাপতির হুমকিতে ৫ সাংবাদিক এলাকাছাড়া করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ বিভাগে করোনা আক্রান্ত রোগী ১৫০০ ছাড়াল

প্রকাশিতঃ ৪:২৪ অপরাহ্ণ | জুন ০৯, ২০২০ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ১৭২ বার

স্টাফ রিপোর্টারঃ ময়মনসিংহ বিভাগে নতুন করে ২৯ জন কোভিড-১৯–এ (করোনাভাইরাস) আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে বিভাগে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১ হাজার ৫০৮ হলো। গতকাল সোমবার রাতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে নমুনা পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করার পর এ তথ্য জানায় স্বাস্থ্য বিভাগ। গতকাল ময়মনসিংহে ১৬ জন, শেরপুরে ৭ জন এবং জামালপুরে ৩ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তবে এদিন নেত্রকোনায় কেউ আক্রান্ত হননি। জেলাভিত্তিক মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ময়মনসিংহে ৭৩০, জামালপুরে ৩৫৩, নেত্রকোনায় ৯৮ ও শেরপুরে ১২৭ জন। বিভাগে মোট আক্রান্তের ৪৮ শতাংশই ময়মনসিংহ জেলার।
বিভাগে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এঁদের মধ্যে ময়মনসিংহে ৮ জন, জামালপুরে ৪, নেত্রকোনায় ৩ এবং শেরপুর জেলায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ৫৯০ জন। সুস্থতার হার ৩৯ শতাংশ।
ময়মনসিংহে ২৩৯ জন, জামালপুরে ১৫৬, নেত্রকোনায় ১২৫ এবং শেরপুরে ৭০ জন সুস্থ হয়েছেন বলে জানা গেছে স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে।
ময়মনসিংহ স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক চিকিৎসক আবুল কাশেম বলেন, করোনা প্রতিরোধ করতে হলে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এলাকাভিত্তিক জরিপ কাজ শেষ পর্যায়ে। শিগগিরই সব এলাকাকে তিনটি ভাগ করে চিহ্নিত করে দেওয়া হবে।
পরবর্তী সময়ে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় করে আক্রান্তে সংখ্যার ভিত্তিতে এলাকাভিত্তিক লকডাউন (অবরুদ্ধ) ঘোষণা করা হবে।

Shares