আজ শনিবার , ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে পৃথক স্থানে ট্রেনে কাটা পড়ে ২জন নিহত এমপি’র পক্ষে হালুয়াঘাট ধান্য ব্যবসায়ী সমিতির কম্বল বিতরণ ধোবাউড়ায় ট্রাক-হোন্ডা সংঘর্ষে নিহত-২, চালক ও হেলপার আটক বাউফলে ইউপি চেয়ারম্যানের ওপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি হালুয়াঘাটে ঝরে পড়া শিশুরা পাবে শিক্ষার সুযোগ। আসছে শিক্ষক নিয়োগও হালুয়াঘাটে স্বামীর আত্নহত্যা দেখে স্ত্রীও বিষ খায়! দুজনেরই মৃত্যু হালুয়াঘাটে স্বামী-স্ত্রীর আত্নহত্যা রাহেলা হযরত মডেল স্কুলে প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে ভাষা শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধাঞ্জলি ভাষা শহীদদের প্রতি কংশ টিভির পরিবার ও গণমাধ্যম কর্মীদের শ্রদ্ধাঞ্জলী ফুটবল ফাইনাল টুর্নামেন্টে বিজয়ী মধুপুর একাদশ স্পোটিং ক্লাব ২৮ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়লো ময়মনসিংহ জেলার শ্রেষ্ট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ত্রিশালের মোস্তাফিজুর রহমান হালুয়াঘাটে পিকনিকের বাস উল্টে আহত-৮ ময়মনসিংহের ত্রিশালে করোনা টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন

ময়মনসিংহ বিভাগে করোনা আক্রান্ত রোগী ১৫০০ ছাড়াল

প্রকাশিতঃ ৪:২৪ অপরাহ্ণ | জুন ০৯, ২০২০ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২০৬ বার

স্টাফ রিপোর্টারঃ ময়মনসিংহ বিভাগে নতুন করে ২৯ জন কোভিড-১৯–এ (করোনাভাইরাস) আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে বিভাগে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১ হাজার ৫০৮ হলো। গতকাল সোমবার রাতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে নমুনা পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করার পর এ তথ্য জানায় স্বাস্থ্য বিভাগ। গতকাল ময়মনসিংহে ১৬ জন, শেরপুরে ৭ জন এবং জামালপুরে ৩ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তবে এদিন নেত্রকোনায় কেউ আক্রান্ত হননি। জেলাভিত্তিক মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ময়মনসিংহে ৭৩০, জামালপুরে ৩৫৩, নেত্রকোনায় ৯৮ ও শেরপুরে ১২৭ জন। বিভাগে মোট আক্রান্তের ৪৮ শতাংশই ময়মনসিংহ জেলার।
বিভাগে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এঁদের মধ্যে ময়মনসিংহে ৮ জন, জামালপুরে ৪, নেত্রকোনায় ৩ এবং শেরপুর জেলায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ৫৯০ জন। সুস্থতার হার ৩৯ শতাংশ।
ময়মনসিংহে ২৩৯ জন, জামালপুরে ১৫৬, নেত্রকোনায় ১২৫ এবং শেরপুরে ৭০ জন সুস্থ হয়েছেন বলে জানা গেছে স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে।
ময়মনসিংহ স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক চিকিৎসক আবুল কাশেম বলেন, করোনা প্রতিরোধ করতে হলে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এলাকাভিত্তিক জরিপ কাজ শেষ পর্যায়ে। শিগগিরই সব এলাকাকে তিনটি ভাগ করে চিহ্নিত করে দেওয়া হবে।
পরবর্তী সময়ে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় করে আক্রান্তে সংখ্যার ভিত্তিতে এলাকাভিত্তিক লকডাউন (অবরুদ্ধ) ঘোষণা করা হবে।

Shares