আজ বৃহস্পতিবার , ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাচনে মোশারফ, ফরিদ, আশুরা বিজয়ী গরীবের আশার বাতিঘর হাজী মোশারফ হালুয়াঘাটে পল্লী বিদ্যুতের খুঁটি পুঁততে গিয়ে মৃত্যু-১, আহত-১ জাতীয় ভাবে”স্বপ্নজয়ী মা” নির্বাচিত হলেন জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জের অবিরণ নেছা ৬১০৮ ভোটের ব্যবধানে হামিদ বিজয়ী। শেখ রাসেল ও মনোয়ারা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হালুয়াঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনঃ প্রবীণে প্রবীণে লড়াই এম্বুলেন্সে করে মাদক পাচারকালে ২৪০ বোতল ভারতীয় মদসহ একজন আটক এমপি মাহমুদুল হক সায়েমকে সি.আই.পি শামিমের সংবর্ধনা হালুয়াঘাটে ঈদে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হল স্বামীসহ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালুয়াঘাটের স্থলবন্দর দিয়ে ২৭টি পণ্যের আমদানী রপ্তানীর পরিকল্পনা-এমপি সায়েম হালুয়াঘাটে ২৭ হাজার দুস্থ অসহায় পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ১৩ বছর পর পদত্যাগ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হালুয়াঘাটে ফেইসবুক গ্রুপে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতা। পুরস্কার বিতরণ ‘কৃষ্ণনগরের কৃষ্ণকেশীর ‘বেহিসেবি রঙ.. হিমাদ্রিশেখর সরকার হালুয়াঘাট থেকে ফুলপুর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণসহ সড়ানো হচ্ছে অস্থায়ী বাস কাউন্টার

হালুয়াঘাটের শিশু ধর্ষণ ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টায় ‘গেসু’ ও ‘গনি’

প্রকাশিতঃ ৮:২৪ অপরাহ্ণ | জুন ০৮, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৪৭১ বার

ওমর ফারুক সুমন: মাত্র ১ টাকা দামের একটি বিস্কুটের প্রলোভন দেখিয়ে ৭ বৎসরের এক শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টায় কয়রাহাটি গ্রামের গিয়াস উদ্দিন (৫২) ও আব্দুল গনি (৪৫) এরা দুইজন লিপ্ত ছিলো বলে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে অভিযোগ উঠেছে। যার ফলশ্রুতিতে ধর্ষনের ঘটনা ঘটার দুইদিন পরে হালুয়াঘাট থানায় মামলা করতে আসেন ধর্ষণের শিকার ঐ শিশুর পরিবার। এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, গত ৩ জুন রবিবার সন্ধায় ঘটনা ঘটে। মামলা হয় ৫ জুন রাতে। এ দু‘দিন ভুক্তভোগী পরিবারের সাথে ধর্ষণকারী পরিবারের পক্ষ নিয়ে আপোষের চেষ্টা চালায় এই দুই মূল হোতা। স্থানীয়রা জানান, এরা এখনো পর্যন্ত অভিযুক্ত মঞ্জুরুলকে বাঁচানোর চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। তাদেরকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ধর্ষণের আলামত নষ্ট করার জন্যেও অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান। ধর্ষক  মঞ্জুরুলের বাড়ি হালুয়াঘাট উপজেলার ৯ নং ধারা ইউনিয়নে। সে আব্দুল হেকিমের পুত্র। শিশুটি গত রবিবার ধারাকলেজ মাঠে ইফতার পার্টি থেকে ইফতার খেয়ে বাড়ি ফেরার পথে পিঁছু অবুঝ শিশুটিকে ফুঁসলিয়ে বিস্কুট খাওয়াবে বলে নদীর পাড়ে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানেই ধর্ষণ করে বখাটে মঞ্জুরুল। এ বিষয়ে হালুয়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার বলেন, মঞ্জুরুলকে আটকের চেষ্টা চলছে। সে পলাতক থাকায় এখনো আটক হয়নি। তবে আটক করা হবে সে যেখানেই থাকুক। এমনটিই জানালেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Shares