আজ বৃহস্পতিবার , ২৬শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাটে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু ওজনে ধান বেশী নেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ নালিতাবাড়ীতে মাংস বিক্রেতাদের জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত নালিতাবাড়ীতে অগ্নিকাণ্ডে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ বসতঘর পুড়ে ক্ষয়ক্ষতি “মুক্তিযুদ্ধে হালুয়াঘাট” গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত প্রকল্পের পাওনা টাকা দাবী: ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে হামলার অভিযোগ “মুক্তিযুদ্ধে হালুয়াঘাট” গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত নালিতাবাড়ীর মাদক ব‍্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব হালুয়াঘাটে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত শেরপুরে স্বামী পরিত্যক্তা তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ: গ্রেফতার এক নালিতাবাড়ীতে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন নালিতাবাড়ীতে র‍্যাবের হাতে বিদেশী মদসহ যূবক গ্রেফতার তিনানী বাজার থেকে সয়াবিন তেল জব্ধ,লাখ টাকা জরিমানা নালিতাবাড়ী প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের অভিযোগে একজন আটক নালিতাবাড়ীতে গতি রোধ করে গরু ব্যবসায়ীর উপর বিজিবি’র গুলি, আহত তিন

বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করায় টানা ৯ দিন অন্ধকারে ৬টি পরিবার

প্রকাশিতঃ ৮:৪৪ অপরাহ্ণ | মার্চ ২৯, ২০২২ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২৬ বার

শেরপুর প্রতিনিধি : বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের শর্তসাপেক্ষে প্রতিমাসে জরিমানা গুণেই বাড়ির আবাসিক মিটার থেকে সংযোগ নিয়ে নিজের জমিতে বোরো আবাদের সেচকাজে বিদ্যুৎ ব্যবহার করছিলেন কয়েকজন কৃষক। আর এ অপরাধেই শুধু সেচপাম্প নয়, পুরো বাড়ির বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করে টানা ৯ দিন যাবত অন্ধকারে রাখা হয়েছে ৬টি পরিবারকে। জানা গেছে, কৃষিনির্ভর জেলা শেরপুরের অন্যতম প্রধান উপজেলা নালিতাবাড়ী। এ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সরকারের অনুমোদনহীন সেচপাম্পের সংখ্যাও নেহায়েত কম নয়। বিভিন্ন সময় এসব অবৈধ সেচপাম্প নিয়ে দ্বন্দ্ব-মারামারি, শালিস-মামলা যেন প্রতি বোরো মৌসুমের নিত্য পেচাল। তবে কৃষিতে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি ও কৃষকের ব্যয় কমিয়ে আনতে স্থানীয় বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ প্রতিমাসে নির্দিষ্ট জরিমানা সাপেক্ষে শুধুমাত্র নিজের জমিতে অগভীর পাম্পে সেচের জন্য আবাসিক মিটার বা সংযোগ ব্যবহারের মৌখিক সুযোগ দিয়ে থাকে। অন্যদিকে বাড়ির আঙিনা বা আশপাশে কৃষিপণ্য আবাদের জন্য আবাসিক সংযোগ দিয়ে সেচকাজ পরিচালনার সরকারী নীতিমালাও রয়েছে। প্রথমোক্ত নিয়মে শর্তসাপেক্ষে জরিমানা দিয়ে শুধুমাত্র নিজেদের বোরো জমিতে অগভীর পাম্প বসিয়ে ছোট মোটরে সেচ দিয়ে আসছিলেন উপজেলার সন্নাসীভিটা নয়াপাড়া গ্রামের তিন বোরো চাষী। এরা হলেন- আক্তার আলী (৬০) প্রায় ৬ একর, ফরহাদ আলী (৩৫) প্রায় ৪ একর ও আকবর আলী (৫২) প্রায় ৪ একর। এ নিয়ে গেল বছর দ্বন্দ্ব উপজেলা পরিষদ পর্যন্ত গড়ালে পরিষদের চেয়ারম্যান এর উপস্থিতিতে অনুমোদিত সেচ পাম্প মালিক জয়নাল আবেদীন ও তিন কৃষকের মধ্যে লিখিত চুক্তি স্বাক্ষর হয়। চুক্তি অনুযায়ী উল্লেখিত তিন চাষী শুধুমাত্র নিজের জমিতে সেচ দিতে পারবেন বলে উল্লেখ করা হয়।
কিন্তু চলতি মৌসুমে জয়নাল আবেদীন পুনরায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে গত ২১ মার্চ সোমবার দুপুরে উল্লেখিত তিন কৃষকের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। ফলে গত ৯ দিন যাবত ওই তিন কৃষকের সেচকাজ বন্ধ থাকার পাশাপাশি বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রয়েছে। এমতাবস্থায় বোরো আবাদ নিয়ে অনিশ্চয়তার পাশাপাশি বাড়িতে বিদ্যুৎ না থাকায় অন্ধকারে রয়েছে তিনটি পরিবার। উল্লেখ থাকে যে, একই দিন আরও তিনটি সংযোগ একই অভিযোগে বিচ্ছিন্ন করা হলে তারাও এখনও অন্ধকারে।
ভুক্তভোগীরা জানান, দুইপক্ষের মাঝে সমঝোতা চুক্তি করে শুধুমাত্র নিজেদের জমিতে সেচ দিচ্ছিলাম। তারপরও আমাদের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় উঠতি বোরো আবাদ নিয়ে শঙ্কায় রয়েছি। অনুমোদিত সেচপাম্পের মালিক সময়মতো আমাদের প্রয়োজনীয় সেচ দিচ্ছেন না। এছাড়াও দীর্ঘ ৯ দিন যাবত বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে বাড়ির মানুষদের অসহনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। নষ্ট হয়ে গেছে ফ্রিজে রাখা খাদ্যসামগ্রী।
নয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মজিবর রহমান (৬৫) জানান, আমরা নিজে উপস্থিত থেকে দুই পক্ষের মাঝে সমঝোতা করে দিয়েছি। এখন নিজের জমিতে সেচ দিতে গেলেও সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা এই মুহূর্তে অমানবিক। তাছাড়াও মাঠের একটি অংশ উচু বিধায় অনুমোদিত সেচের পানি ওই অংশে উঠে না। ফলে বোরো আবাদ অনিশ্চয়তায় পড়ে যাবে।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে পল্লী বিদ্যুৎ নালিতাবাড়ী শাখার উপ-মহাব্যবস্থাপক মহিউদ্দিন জানান, যেহেতু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয় নিজে উপস্থিত থেকে এসব বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছেন। তাই স্যারের অনুমোতি ব্যতীত আমরা সংযোগ দিতে পারি না। তবে বাড়ির সংযোগটি বৈধ এবং তা বিচ্ছিন্ন করার যৌক্তিকতা নিয়ে একমত পোষণ করেন তিনি।
এদিকে বাড়ির সংযোগ দেওয়ার বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে একাধিকবার বলার পর এবং মাসিক আইনশৃঙ্খলা সভায় উপস্থাপন করে কৃষকের স্বার্থে মানবিক হওয়ার আবেদন জানানো হলেও তিনি কর্ণপাত করেননি।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হেলেনা পারভীন জানান, এক্ষেত্রে বোরো জমিতে সেচের কোন অসুবিধা হবে না। সেচের বিষয়টি আমরা নিশ্চিত করব। বাড়ির সংযোগের বিষয়ে তিনি সরকারের নির্দেশনা না মানার অপরাধ দেখিয়ে শাস্তি হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, এ বিষয়টি বিদ্যুৎ কর্র্তৃপক্ষের।

Shares