আজ সোমবার , ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বিচারপতি টি.এইচ.খান আর নেই হালুয়াঘাটের যুবককে পিটিয়ে হত্যা হালুয়াঘাটের যুবককে পিটিয়ে হত্যা হালুয়াঘাটে দুই গারো তরুণীকে দলবেঁধে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার-৫ বাউফলে নৌকার মাঝি হলেন বর্তমান মেয়র জুয়েল কেন্দুয়ায় মৃত ব্যক্তি ভেঙ্গেছে নৌকা প্রার্থীর বাড়ীঘর ওসি শাহিনুজ্জামান’র শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হালুয়াঘাটে প্রতিবেশীকে ফাঁসাতে শশুরকে জবাই জামাতার! রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা বাউফলে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালিত হালুয়াঘাটে ঐতিহাসিক তেলিখালী যুদ্ধ দিবস উদযাপন বাউফলে যুবদলের ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পলিত নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

হালুয়াঘাটে প্রতিবেশীকে ফাঁসাতে শশুরকে জবাই জামাতার!

প্রকাশিতঃ ৯:০০ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ১৫, ২০২১ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৪৮৫ বার

ওমর ফারুক সুমনঃ ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরধরে আশি বছর বয়সী বৃদ্ধ শশুরকে জবাই করে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে জামাতা নজরুল ইসলাম (৫২)। বুধবার আদালতে খুনের কথা স্বীকার করে জবানবন্দী দেয় বলে জানান হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহিনুজ্জামান খান। ঘটনা, মামলা ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, গত সোমবার নিহত বৃদ্ধ আব্দুল জব্বার হালুয়াঘাট উপজেলার গাঙ্গিনারপাড় গ্রামে নিজ কন্যার বাড়িতে বেড়াতে যান। রাতে মেয়ের শশুর বাড়িতেই রাত্রি যাপন করেন তিনি। পুলিশ জানায়, দাড়ালো দা দিয়ে জবাই করে, একই সাথে কুপিয়ে নৃশংসভাবে খুন করে শশুরকে। খুনের কারন সম্পর্কে জানতে চাইলে ওসি শাহিনুজ্জামান খান বলেন, নজরুলের সাথে তার প্রতিবেশী খোকন, ছোটন, ওসমান গংদের সাথে জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছিলো। এ নিয়ে দফায় দফায় দরবার সালিশও হয়। সামনে জমির বিরোধ নিস্পত্তিকল্পে একটি দরবারের তারিখ ছিলো। এর আগেই প্রতিবেশী খোকনসহ অন্যান্যদের ফাঁসাতে নিজ শশুরকেই খুন করার পরিকল্পনা করেন জামাতা নজরুল ইসলাম। গত সোমবার দিবাগত রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় কুপিয়ে ও জবাই করে হত্যা করেন শশুরকে। পরে সকাল বেলায় ৯৯৯ থেকে কল পেয়ে হালুয়াঘাট থানার ওসি শাহিনুজ্জামান খান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। প্রথমে জামাইকে সন্দেহ হলে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে আটক করেন। পরে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে খুনের কথা স্বীকার করেন জামাতা নজরুল ইসলাম। এ বিষয়ে হালুয়াঘাট থানার ওসি শাহিনুজ্জামান খান বলেন, মাননীয় পুলিশ সুপারের নির্দেশে ঘটনা ঘটার একদিনের মধ্যেই হত্যাকান্ডের মূল কারন ও জড়িতদের চিহ্নিত করা সম্ভব হয়েছে। থানায় নজরুলকে প্রধান আসামী করে দুইজন ও অজ্ঞাত নামা কয়েকজনের বিরুদ্ধে হত্যামামলা রুজো হয়েছে।

Shares