আজ বুধবার , ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বাউফলে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ বাউফল উপজেলা ও পৌর সেচ্ছাসেবক দলের আহব্বায়ক কমিটি ঘোষণা বাউফলে ইউএনও’র বিদায়ী সংবর্ধনা নালিতাবাড়ীতে জেলা শিক্ষা অফিসারের বিদ্যালয় পরিদর্শন বাউফলে বিএনপি’র ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত বাউফলে ছেলের বিচার চেয়ে বাবা মায়ের সাংবাদিক সম্মেলন বাউফলে জাতীয় মৎস সপ্তাহ শুরু হালুয়াঘাটে বজ্রপাতে মৃত্যু! বাবার লাশের পাশে দেড় বছরের শিশু ‘নুসাইবা’ হালুয়াঘাটে নির্মাণের বছরেই বক্স কালভার্ট ধ্বস! বাউফলে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া-মোনাজাত ভিক্ষের টাকা গণনা করছিলো ভিক্ষুক। ইমাম বাসের চাপায় মৃত্যু ঐ ভিক্ষুকের শোক দিবসে হালুয়াঘাটে বিজিবি’র ত্রাণ বিতরণ বাউফলে সফিউল বারী বাবু’র মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া-মোনাজাত করোনা টেস্ট করাতে অনিহা হালুয়াঘাটে করোনায় আক্তান্ত হয়ে ৯৬ বছরের বৃদ্ধের মৃত্যু। মোট মৃত্যু-৭

বাউফলে ছেলের বিচার চেয়ে বাবা মায়ের সাংবাদিক সম্মেলন

প্রকাশিতঃ ২:৫৩ অপরাহ্ণ | আগস্ট ৩০, ২০২১ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৩৯ বার

বাউফল(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফলে ছেলের বিরুদ্ধে বিচার চেয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন নিজ পিতা মোসলেম উদ্দিন মৃধা। আজ সোমবার বেলা ১১ টায় বাউফল পৌরসভার কুন্ডুপট্রি সড়কে প্রেসক্লাবে লিখিত আকারে এ সাংবাদিক সম্মেলন করেন তিনি। সম্মেলনে পিতার পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তাঁর ছোট ছেলে জিয়াউল হক জুয়েল। লিখিত অভিযোগে তিনি বলেন, আমি মদনপুরা ইউনয়নের চন্দ্রপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। আমার ছেলে শাহীন একজন মামলাবাজ ,চাঁদাবাজ,সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যু প্রকৃতির লোক। একের পর এক আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করিতেছে। এলাকায় বিভিন্ন অপকর্ম করিয়া থাকে। তাতে আমি বাধা দিলে সে আমাকে ও আমার স্ত্রীর উপর ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদেরকে মারধর করে। এ ঘটনায় ছেলে শাহীনের বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হলে শাহীন আরো ক্ষিপ্ত হয়ে আবারও মারধর করে টাকা পয়সা নিয়ে যায় এবং ঘরের মালামাল ভাংচুর করে। এরপর আমার পৌত্তিক সম্পত্তিতে চাষ করতে গেলে শাহীন আমাকে লাথি ও কিলঘুসি মারিয়া আহত করে। এ ঘটনায় থানায় সাধার ডায়েরী করি আমি। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে শাহীন আমার কাছে এক লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করলে আমার দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে ৫৫ হাজার টাকা নিয়া যায় এবং দোকানের বিভিন্ন মালামাল ভাঙচুর করে। আমি অতিষ্ট হয়ে পটুয়াখালীর মোকাম বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করি। মামলার সত্যতা পেয়ে আদালত শাহীনকে কারাগারে পাঠায়। পরে অঙ্গীকার নামা দিয়ে জামিনে বের হয়ে মামলা তুলে নিতে আমাকে ও আমার স্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেয়। আমাকে জমিতে হাল চাষ করিতে দেয় না। গাছ পালা কাটিয়া নিয়ে যায়। আমাদের জীবন খুবই বিপন্ন হয়ে পড়েছে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মোসলেম উদ্দিন জানান, তার ছেলে শাহিন মৃধা ৪২ মামলার বাদী ও ৮ মামলার আসামী। তার ভয়ে গোটা চন্দ্রপাড়া গ্রামের মানুষ জিম্মি। তিনি নিরুপায় হয়ে অবাধ্য সন্তানের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেন করেছেন। তিনি এ বিষয়ে প্রতিকারের জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, শাহিন মৃধার মা ফজিলাত বেগম, চাচা ফারুক মৃধা, মুসা মৃধা, ছালাম মৃধা, আক্রাম মৃধা প্রমূখ।

Shares