আজ বৃহস্পতিবার , ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বিচারপতি টি.এইচ.খান আর নেই হালুয়াঘাটের যুবককে পিটিয়ে হত্যা হালুয়াঘাটের যুবককে পিটিয়ে হত্যা হালুয়াঘাটে দুই গারো তরুণীকে দলবেঁধে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার-৫ বাউফলে নৌকার মাঝি হলেন বর্তমান মেয়র জুয়েল কেন্দুয়ায় মৃত ব্যক্তি ভেঙ্গেছে নৌকা প্রার্থীর বাড়ীঘর ওসি শাহিনুজ্জামান’র শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হালুয়াঘাটে প্রতিবেশীকে ফাঁসাতে শশুরকে জবাই জামাতার! রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা বাউফলে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালিত হালুয়াঘাটে ঐতিহাসিক তেলিখালী যুদ্ধ দিবস উদযাপন বাউফলে যুবদলের ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পলিত নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ভিক্ষুক সালেমুন নেছার বাড়িতে ইউ.এন.ও

প্রকাশিতঃ ৮:১২ অপরাহ্ণ | জুলাই ২০, ২০২১ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ১২৩ বার

ওমর ফারুক সুমনঃ প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ভিক্ষুক সালেমুন নেছার বাড়ীতে যান হালুয়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম। আজ বিকেলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ তৌহিদুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে ঐ বৃদ্ধার বাড়ীতে উপস্থিত হয়ে তার হাতে নগদ টাকা ও খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন। একই সাথে ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্যেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেন। সালেমুন নেছার কাছ থেকে ফিরে এসে এ তথ্য নিশ্চিত করেন এসিল্যান্ড তৌহিদুর রহমান ও ইউ.এন.ও রেজাউল করিম। । প্রশাসনের এই দুই কর্মকর্তা জানান, ভিক্ষুক সালেমুন নেছা বয়স বেশী ও শারিরীকভাবে দুর্বল। তার দেখভাল করার কেউ নেই। এই মুহুর্তে ঘরের চেয়ে তার খাদ্যের সংস্থানটা জরুরী। তার বাকী জীবনে যাতে খাদ্যের চিন্তা না করতে হয় সে জন্যে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ভিক্ষুক সালেমুন নেছাকে রান্নাবান্না করে খাওয়াবে এই ব্যবস্থাও করা হয়েছে। একই সাথে তার চিকিৎসাসহ নিয়মিত খোজ খবর নেয়া হবে এমনটাই জানান তারা। উল্লেখ্য ২০২০ সালের ৪ জুন তারিখে সালেমুন নেছা বৃষ্টিতে ভিজে ভিক্ষা করতেছিলো এমন একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হয়। পরে ইউ.এন.ও রেজাউল করিম ও তৎকালীন এসিল্যান্ড তানভির আহমেদ বৃদ্ধার খোজ খবর নেন, তাকে খাবার, চিকিৎসা ও বস্ত্রের ব্যবস্থা করে স্থায়ী পুনবার্সন করার প্রতিশ্রুতিও দেন। কিন্তু দীর্ঘ এক বছরে ঐ ভিক্ষুকের জন্যে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা না করায় এ নিয়ে গত ১৯ জুলাই দৈনিক মানবজমিনে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। যার প্রেক্ষিতে ইউ.এন.ও রেজাউল করিমের কাছে ঘটনাটি পুনরায় নজরে আসলে আজ বিকেলে ভিক্ষুক সালেমুন নেছার বাড়ীতে উপস্থিত হন। সালেমুন নেছার বাড়ী পূর্ব গোবড়াকুড়া (শাপলা বাজার) গ্রামে।

Shares