আজ শুক্রবার , ৩০শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিএনপি নেতা রুবেল’র অক্সিজেন সিলিন্ডার ও চিকিৎসা সামগ্রী প্রদান বাউফলে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী পেল ২৬২ দুস্থ পরিবার হালুয়াঘাটে ১০৮০ টাকায় এম্ভুলেন্স সেবা। উদ্ভোধন করলেন এমপি জুয়েল আরেং হালুয়াঘাট ডোবা থেকে বৃদ্ধা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার বাউফল প্রেসক্লাবের সভাপতিকে হুমকি বাউফলে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী গ্রেপ্তার হালুয়াঘাটে গত দুইদিনে তিন নারীর আত্মহত্যা! হালুয়াঘাটে পারিবারিক দ্বন্ধে দুই নারীর আত্মহত্যা! হালুয়াঘাটে পারিবারিক দ্বন্ধে দুই নারীর আত্মহত্যা করোনা সন্দেহে লাশ নেয়নি পরিবার, দাফন করল ছাত্রলীগ বাউফলে ইশা ছাত্র আন্দোলনের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ভিক্ষুক সালেমুন নেছার বাড়িতে ইউ.এন.ও ভিক্ষুক সালেমুন নেছা’র আজও হয়নি পুনর্বাসন ময়মসিংরে ত্রিশালে জমে উঠছে কোরবানি পশুর হাট প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রণোদনার ঋণ পেল করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ উদ্যোক্তারা

প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ভিক্ষুক সালেমুন নেছার বাড়িতে ইউ.এন.ও

প্রকাশিতঃ ৮:১২ অপরাহ্ণ | জুলাই ২০, ২০২১ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২২ বার

ওমর ফারুক সুমনঃ প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ভিক্ষুক সালেমুন নেছার বাড়ীতে যান হালুয়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম। আজ বিকেলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ তৌহিদুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে ঐ বৃদ্ধার বাড়ীতে উপস্থিত হয়ে তার হাতে নগদ টাকা ও খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন। একই সাথে ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্যেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেন। সালেমুন নেছার কাছ থেকে ফিরে এসে এ তথ্য নিশ্চিত করেন এসিল্যান্ড তৌহিদুর রহমান ও ইউ.এন.ও রেজাউল করিম। । প্রশাসনের এই দুই কর্মকর্তা জানান, ভিক্ষুক সালেমুন নেছা বয়স বেশী ও শারিরীকভাবে দুর্বল। তার দেখভাল করার কেউ নেই। এই মুহুর্তে ঘরের চেয়ে তার খাদ্যের সংস্থানটা জরুরী। তার বাকী জীবনে যাতে খাদ্যের চিন্তা না করতে হয় সে জন্যে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ভিক্ষুক সালেমুন নেছাকে রান্নাবান্না করে খাওয়াবে এই ব্যবস্থাও করা হয়েছে। একই সাথে তার চিকিৎসাসহ নিয়মিত খোজ খবর নেয়া হবে এমনটাই জানান তারা। উল্লেখ্য ২০২০ সালের ৪ জুন তারিখে সালেমুন নেছা বৃষ্টিতে ভিজে ভিক্ষা করতেছিলো এমন একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হয়। পরে ইউ.এন.ও রেজাউল করিম ও তৎকালীন এসিল্যান্ড তানভির আহমেদ বৃদ্ধার খোজ খবর নেন, তাকে খাবার, চিকিৎসা ও বস্ত্রের ব্যবস্থা করে স্থায়ী পুনবার্সন করার প্রতিশ্রুতিও দেন। কিন্তু দীর্ঘ এক বছরে ঐ ভিক্ষুকের জন্যে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা না করায় এ নিয়ে গত ১৯ জুলাই দৈনিক মানবজমিনে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। যার প্রেক্ষিতে ইউ.এন.ও রেজাউল করিমের কাছে ঘটনাটি পুনরায় নজরে আসলে আজ বিকেলে ভিক্ষুক সালেমুন নেছার বাড়ীতে উপস্থিত হন। সালেমুন নেছার বাড়ী পূর্ব গোবড়াকুড়া (শাপলা বাজার) গ্রামে।

Shares