আজ বুধবার , ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

এম্বুলেন্সে করে মাদক পাচারকালে ২৪০ বোতল ভারতীয় মদসহ একজন আটক এমপি মাহমুদুল হক সায়েমকে সি.আই.পি শামিমের সংবর্ধনা হালুয়াঘাটে ঈদে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হল স্বামীসহ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালুয়াঘাটের স্থলবন্দর দিয়ে ২৭টি পণ্যের আমদানী রপ্তানীর পরিকল্পনা-এমপি সায়েম হালুয়াঘাটে ২৭ হাজার দুস্থ অসহায় পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ১৩ বছর পর পদত্যাগ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হালুয়াঘাটে ফেইসবুক গ্রুপে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতা। পুরস্কার বিতরণ ‘কৃষ্ণনগরের কৃষ্ণকেশীর ‘বেহিসেবি রঙ.. হিমাদ্রিশেখর সরকার হালুয়াঘাট থেকে ফুলপুর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণসহ সড়ানো হচ্ছে অস্থায়ী বাস কাউন্টার জনগণের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি রাজপথে থাকবে-প্রিন্স ডামি নির্বাচন করে গণতন্ত্রকে আইসিইউতে পাঠিয়েছে আওয়ামী লীগ-প্রিন্স বাজারে পণ্যের অগ্নিমূল্যের তাপ তাদের গায়ে লাগেনা-প্রিন্স নালিতাবাড়ীতে প্রেসক্লাবের নির্বাচন, সভাপতি সোহেল সম্পাদক মনির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে-বিএনপি নেতা প্রিন্স হালুয়াঘাটে বিএনপি নেতা প্রিন্স’র লিফলেট বিতরণ

উদ্ভোধনের বছর না পেরোতেই হালুয়াঘাটে ৩২ লক্ষাধিক টাকার সেতু ধ্বস

প্রকাশিতঃ ৩:৪৪ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৬, ২০২১ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৪১৩ বার

ওমর ফারুক সুমন: উদ্ভোধনের এক বছর না পেরোতেই ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে ৩২ লক্ষাধিক টাকা ব্যায়ে নির্মিত সেতু ধ্বসে পড়ায় দুর্ভোগে পড়েছে আশপাশের ৪/৫টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ। স্থানীয়রা বলছে নিন্ম মানের কাজ করায় এ ধ্বসের মূল কারন। জানা যায়, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে হালুয়াঘাটের ৮নং নড়াইল ইউনিয়নের গোপীনগর ছোবান মেম্বারের বাড়ির পাশে খালের উপর ৩২ লক্ষাধিক টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয় ৩৬ ফুট দীর্ঘ সেতু। যা ২০২০ সালের ২৭ জানুয়ারী আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ভোধন করেন স্থানীয় সাংসদ জুয়েল আরেং। জানা যায়, ফুলপুর উপজেলার মেসার্স সেতু এন্টারপ্রাইজ নামক ঠিকাদারী একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমেই ব্রীজটির নির্মাণ কাজ শেষ হয়। ব্রীজটির কাজ আরম্ভের শুরুতেই নিন্মমানের কাজ করায় স্থানীয়রা দাবী করেন। কিন্তু ঠিকাদার মারুফ হোসেন তার প্রভাব খাটিয়ে কোনমতে ব্রীজটি নির্মাণ করে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে যান। গোপীনগর গ্রামের ভুক্তভোগী জসিম উদ্দিন ফকির (৬৫), আব্দুল খালেক (৫৫), আব্দুল মজিদ (৭০), আজিজুল (৪৫) বলেন, অত্যন্ত নিন্মমানের কাজ করেছে সেতু এন্টারপ্রাইজের ঠিকাদার মারুফ হোসেন। তারা বলেন, যখন কাজটি শুরু করে তখন চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সহ স্থানীয়রা প্রতিবাদ করেন। পরে কিছু সময়ের জন্যে কাজ বন্ধ রাখলেও রাতের আধারে ঢালাই দিয়ে নিচের মূল ভিত্তি কোনমতে তুলে ফেলে। স্থানীয়দের দাবী, সেতুটির অর্থ বরাদ্ধ হয়েছে ৩২ লক্ষ ৪১ হাজার, ৪৩৬টাকা। মোট বরাদ্ধের অর্ধেক টাকাও খরচ করেনি সেতু এন্টারপ্রাইজের ঠিকাদার মারুফ হোসেন। এ বিষয়ে ঠিকাদার মারুফ হোসেনের কাছে সেতু ধ্বসের কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন, সেতু নির্মাণের জায়গাটি সঠিক ছিলোনা। স্থানীয়দের বাধার মুখে অনুপযুক্ত স্থানে সেতু নির্মাণ করা হয়েছে যা প্রাকৃতিক দুর্যোগ বন্যায় ধ্বসে গেছে। এদিকে বছর না যেতেই সম্পূর্ণরুপে ব্রীজটি ধ্বসে পড়াই দুর্ভোগে পড়েছে এই সেতুটির উপর নির্ভরশীল আশপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষ। পাশাপাশি ব্রীজটি ধ্বসে পড়ায় পানির স্রোত ভিন্ন দিকে প্রবাহিত হয়ে বেশ কিছু বাড়ীও ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে যায়। সেতুর বিষয়ে জানতে চাইলে হালুয়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম বলেন, ইতিমধ্যে সেতুটি পুনঃমেরামত করতে প্রতিবেদন প্রেরণ করা হয়েছে। আশাকরি সেতুটি পুনঃনির্মাণ করা হবে।

Shares