আজ শনিবার , ৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাটে আরব আলী ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ৬ শত মানুষ পেল ঈদ উপহার হালুয়াঘাটে রাস্তার দাবিতে মানববন্ধন মর্ডান স্পোটিং ক্লাবের দোয়া ও ইফতার জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা কায়েসের ঈদ উপহার সচেতনতা মুলক স্টিকার ও মাস্ক বিতরণ করলো জনপ্রিয় সেচ্ছাসেবী সংঘঠন ত্রিশাল হেল্পলাইন আজ শফিকুল ইসলাম ভাইয়ের মৃত্যুবার্ষিকী খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় ত্রিশাল ছাত্রদলের পক্ষ থেকে ইফতার বিতরণ হালুয়াঘাটে কৃষকের ধান কাটলেন এমপি হালুয়াঘাটে কর্মহীন মানুষের মাঝে রুবেলে’র খাদ্য সামগ্রী বিতরণ! করোনাঃ মৃত্যুর মিছিলে ১৫৪ চিকিৎসক বাউফলে ডায়রিয়া আক্রান্তদের মাঝে বিনামূল্যে স্যালাইন বিতরণ বাউফলে টাকা চুরি’র ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক যুবককে কুপিয়ে জখম মৃত্যুপুরী ভারত শ্মশানে জায়গা না থাকায় গণচিতা ভারতে লুকানো হচ্ছে কোভিডে মৃতের সংখ্যা কমতে শুরু করেছে মৃত্যু ও শনাক্ত সংখ্যা

হালুয়াঘাটে ঝুঁকিপূর্ণ সেতু! বিচ্ছিন্ন মালবাহী পণ্যের গাড়ী

প্রকাশিতঃ ৫:১৭ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২১, ২০২১ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৩৩ বার

ওমর ফারুক সুমন: ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার তেলিখালীর সেওল নদীর উপর ঝুঁকিপূর্ণ বেইলি ব্রীজের কারনে বিচ্ছিন্ন রয়েছে গোবড়াকুড়া স্থলবন্দর ও শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার নাকুগাঁও স্থলবন্দরের মালবাহী সকল পরিবহনের। সম্প্রতি সময়ে সড়ক বিভাগ কর্তৃক পাঁচ টনের অধিক ভারী যানবাহন ব্রীজের উপর দিয়ে চলাচলের নিষেধাজ্ঞা জারি করায় সৃষ্টি হয়েছে চরম দূর্ভোগ। বন্ধ রয়েছে দুই উপজেলার সীমান্ত সড়কের সকল মালবাহী সকল ভারী পরিবহনের। জানা যায়, দময়মনসিংহের সীমান্ত সড়কের পাকাকরন কাজ সম্পন্ন করেছে সড়ক বিভাগ। সেই সাথে সড়কের উপরে ছোট বড় ব্রীজ কালভার্ট গুলোও পুনঃনির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। জানা যায়, নাকুগাঁও স্থলবন্দর থেকে কড়ইতলী-গোবড়াকুড়া স্থলবন্দরের দূরত্ব প্রায় ১০ কিলোমিটার। আর এই দুটি বন্দরের মাঝে শুধু মাত্র একটি বেইলি ব্রীজ না থাকায় বর্তমানে বিচ্ছিন্ন দুটি বন্দরের ভারী পরিবহনের। শুধু তাই নয়, হালকা পরিবহনগুলোকেও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় যাতায়াত করতে হচ্ছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বেইলি ব্রীজটির অধিকাংশ জায়গাই ফাটল দেখা দিয়েছে। সুরক্ষার জন্যে নিচে যে ভিত্তিটি রয়েছে তাও ভঙ্গুর। এক পাশের হাতল ভেঙ্গে গিয়েছে। অধিকাংশ পাতাতন সড়ে গিয়েছে। এমন একটি অবস্থা যা যে কোন সময় ভেঙ্গে দূর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে। স্থানীয়রা জানান, ইতিমধ্যে একটি ট্রাক দূর্ঘটনার মুখোমুখি হতে হয়েছে এই ব্রীজে। স্থানীয় শাহালম(৫৫) নামে একজন বলেন, এই বেইলি ব্রীজটি বর্তমানে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। যে কোন সময় ভেঙ্গে গিয়ে বড় ধরনের ক্ষতির আশংকা রয়েছে। তিনি বলেন, স্বাধীনতার পরবর্তী সময় থেকেই ঐতিহাসিক তেলিখালীর শেওল নদীর উপর নির্মিত হয় বেইলি ব্রীজ। বর্তমানে ঝুঁকিপূর্ণ এই বেইলি ব্রীজ দিয়ে যাতায়াত করে আসছে হালুয়াঘাট আর নালিতাবাড়ী দুই উপজেলার লাখো মানুষ। এই ব্রিজের দুই পাশে রয়েছে গোবড়াকুড়া ও নাকুগাও স্থলবন্দর। সম্প্রতি সময়ে দুইটি স্থলবন্দরের সংযোগে দিয়ে সীমান্ত সড়কের কাজ পাকাকরন করলেও নির্মাণ করা হয়নি এই ব্রীজটির। ফলে সম্পূর্ণ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে সেতুটি। যে কোন সময় সম্পূর্ণরুপে তা ভেঙ্গে গিয়ে ঘটে যেতে পারে মারাত্বক দূর্ঘটনা এমনটাই জানান স্থানীয় ভুক্তভোগীরা। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম সুরুজ মিয়া বলেন, শুধু মাত্র মালবাহী পণ্যের যোগাযোগই বন্ধ এমন নয়, এই বেইলি ব্রীজ দিয়ে প্রতি বছর ৩রা নভেম্বর এই ব্রীজ দিয়েই ঐতিহাসিক তেলিখালী যুদ্ধ দিবস উপলক্ষে শহীদ বেদিতে গণ কবর ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের কবর পরিদর্শনে আসেন প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দসহ মুক্তিযোদ্ধারা। দীর্ঘ দিনেও পূর্ণাঙ্গ ব্রীজ নির্মাণ না করায় হতাশ তিনি। চেয়ারম্যান বলেন, আমি ইঞ্জিনিয়ারের সাথে কথা বলেছি। চেষ্টা চলছে দ্রুত এখানে একটি ব্রীজ নির্মাণ করার। ###

Shares