আজ রবিবার , ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১লা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার বিচারের দাবীতে আজ মানববন্ধন হালুয়াঘাটের শিমুলকুচি গ্রামে কামাল’র কুলখানি অনুষ্ঠিত হালুয়াঘাটে বৃদ্ধকে নির্যাতনের ঘটনায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ হালুয়াঘাটের ট্রলি উল্টে দুই বন্দর শ্রমিকের মৃত্যু, আহত ৬ মাছ ধরার জালে ঢিল ছোড়ায় খুন হন শিশু শিক্ষার্থী সুমন হালুয়াঘাটে ১ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে কুপিয়ে খুন এমপি’র কাছে নালিশ করায় বৃদ্ধকে পিটিয়েছে চেয়ারম্যান হালুয়াঘাটে প্রতারিত শত শত কৃষক বাউফলে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ বাউফল উপজেলা ও পৌর সেচ্ছাসেবক দলের আহব্বায়ক কমিটি ঘোষণা বাউফলে ইউএনও’র বিদায়ী সংবর্ধনা নালিতাবাড়ীতে জেলা শিক্ষা অফিসারের বিদ্যালয় পরিদর্শন বাউফলে বিএনপি’র ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত বাউফলে ছেলের বিচার চেয়ে বাবা মায়ের সাংবাদিক সম্মেলন

আশ্চর্য হলেও সত্যি! নারী সাংবাদিককে অকস্মাৎ চুমু, অতঃপর

প্রকাশিতঃ ১:১০ অপরাহ্ণ | জুন ২০, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২৫৩ বার

ডেস্ক রিপোর্টঃ রাশিয়া বিশ্বকাপ কাভার করছিলেন জুলিথ গঞ্জালেস থেরান। কলম্বিয়ান এই নারী ক্রীড়া সাংবাদিক জার্মান সংবাদ চ্যানেল ডয়েচে ভ্যালের হয়ে রাশিয়ায় গেছেন। কাজের সূত্রেই সরাসরি সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানে কথা বলছিলেন তিনি। হঠাৎ এক ব্যক্তি এসে তাকে জড়িয়ে ধরে চুমু দিলেন! তবে এতে থেমে যান নি থেরান। একবিন্দু না থেমে বরং কথা চালিয়ে গেছেন। বৃটিশ দৈনিক ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়, ঘটনার সময় সসানস্ক শহরের একটি বিশ্বকাপ কাউন্টডাউন ঘড়ির সামনে উপস্থিত ছিলেন থেরান।

মাইক্রোফোন হাতে তিনি যখন কথা বলছিলেন, তখন তা সরাসরি সম্প্রচারিত হচ্ছিল। কিন্তু অকস্মাৎ ওই লোকটি আপত্তিকরভাবে তাকে জড়িয়ে ধরে গালে চুমু দেয়। এমন ভয়াবহ ঘটনার পরও ঘাবড়ে যাননি থেরান। বরং, ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে নিজের বক্তব্য শেষ করেছেন।

পরে ঘটনার ফুটেজ নিজের ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে আপলোড করে থেরান বলেন, ‘আমি সেখানে দুই ঘণ্টা আগে থেকে প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। তখন কিছুই হয়নি। কিন্তু যখনই আমরা সরাসরি সম্প্রচারে গেলাম, এই লোকটি তার সুযোগ নিল।’
তিনি আরও বলেন, ‘লোকটি আমার দিকে এসে আমাকে আপত্তিকরভাবে স্পর্শ করে। গালে চুমু দেয়। কিন্তু আমাকে কথা চালিয়ে যেতে হয়েছিল। সম্প্রচার শেষে আমি আশেপাশে খুঁজে দেখেছি লোকটি আছে কিনা। কিন্তু সে ততক্ষণে পালিয়ে গেছে।’
সাংবাদিক থেরান আরও বলেন, ‘এই ধরণের আচরণ আমাদের প্রাপ্য নয়। আমরা সমান পেশাদার। ফুটবলের যে আনন্দ, তা আমারও। তবে মুগ্ধতা ও হয়রানির মধ্যে যে পার্থক্য, তা আমাদের চিহ্নিত করতে হবে।’
থেরানের অনেক অনুসারী এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। একজন মন্তব্য করেছেন, ‘এই ধরণের ঘটনা কাম্য নয়। আপনি একজন বুদ্ধিমতি, সুন্দরী ও মহীয়সী নারী।’ আরেক মন্তব্যকারী লিখেছেন, ‘আপনি ঘটনা ভালোভাবেই সামলেছেন। কিন্তু লোকটি প্রথম শ্রেণির বেয়াদব।’
লোকটির পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

Shares