আজ বৃহস্পতিবার , ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বাউফলে সাবেক এমপি শহীদুল আলম তালুকদারের মতবিনিময় সভা হালুয়াঘাটে নবান্নকে ঘিরে পিঠা পুলির উৎসব! কোভিড-১৯ প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে মেয়রের আহব্বান বাউফলে তারেক রহমানের জন্মবার্ষিকী পালিত বাউফলে প্রায়তঃ শিক্ষকের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া-মোনাজাত আত্মহত্যার পরও সূদের টাকার জন্য ফোন! ত্রিশালে সড়ক দূরঘটনায় একজন নিহত চার জন আহত ত্রিশালে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত আমতলীতে মাদ্রাসা মাঠে ধান চাষ বরগুনায় ১০ দোকান পুড়ে ছাই হৃদয় হত্যাকাণ্ডে জড়িত প্রত্যেকের ফাঁসি চান পরিবার আইপিএলে ,নিঃস্ব হচ্ছে অনেক পরিবার ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শাহ্ আহসান হাবীব বাবুর জন্ম দিন পালন বরগুনায় সেরা সম্পাদককে সংবর্ধনা বরগুনা বেতাগীর আলোচিত বজলু হত্যা মামলার ২ নম্বর আসামি আটক

বাউফলে ব্রিজের নির্মাণ কাজ বন্ধ, জনদুর্ভোগ

প্রকাশিতঃ ৭:৫৮ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১০, ২০২০ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৭৩ বার

বাউফল(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফল ও নওমালা সড়কের ভিডিসি বাজার সংলগ্ন খালের উপর একটি গার্ডার ব্রিজের নির্মাণ কাজ দীর্ঘ দিন ধরে বন্ধ রয়েছে । এর ফলে সাধারন মানুষ দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। মেসার্স সম্পা কনকট্রাকশনের নামে পটুয়াখালীর জনৈক এনায়েত হোসেন এই গার্ডার ব্রিজটির নির্মাণ কাজ করছেন।
জানা গেছে, ২০১৯-২০২০ইং অর্থ বছরের স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের আওতায় ওই সড়কের ভিডিসি সংলগ্ন খালের উপর ২ কোটি ২৪ লাখ ১৮ হাজার ৮০ টাকা ব্যয়ে ২৫ মিটার দৈর্ঘ, ৭ পয়েন্ট ৩ মিটার প্রস্থর এবং ৪ মিটার উচ্চতা সম্পন্ন গার্ডার ব্রিজ নির্মাণের জন্য গত বছর অক্টোবর মাসে দরপত্র আহবান করা হয়। কার্যদেশ পাওয়ার তিন মাসের মধ্যে ব্রিজটির নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হওয়া কথা থাকালে তা করা হয়নি। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান চলতি বছর জানুয়ারি মাস থেকে ব্রিজটির নির্মাণ শুরু করেন। ব্রিজটির ৬০ ভাগ কাজ শেষ হলেও মে মাস থেকে ব্রিজটির নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে। বিকল্প পথে যাতায়তের জন্য ওই নির্মাণাধিন ব্রিজের পশ্চিম পাশে একটি কাঠের সেতু নির্মাণ করে দেয়া হলেও বর্তমানে সেটি বেহাল অবস্থায় পরিণত হয়েছে। সেতুটি দেবে গেছে। বর্ষার পানিতে ওই কাঠের সেতুর দুই পাশ ডুবে যাওয়ায় । এ ছাড়াও সেতুটির সংযোগ সড়ক খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ পটুয়াখালী জেলা শহরেরসহ বিভিন্ন স্থানে যাতায়ত করতে গিয়ে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।
এ ব্যাপারে জানাতে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সাব-কন্ট্রাকটর এনায়েত হোসেনের মুঠো ফোনে কল দেয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন। পরে সাংবাদিক পরিচয় পাওয়ার পর লাইন কেটে দেন। এরপর আর ফোন রিসিভ করেননি।

Shares