আজ সোমবার , ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বিচারপতি টি.এইচ.খান আর নেই হালুয়াঘাটের যুবককে পিটিয়ে হত্যা হালুয়াঘাটের যুবককে পিটিয়ে হত্যা হালুয়াঘাটে দুই গারো তরুণীকে দলবেঁধে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার-৫ বাউফলে নৌকার মাঝি হলেন বর্তমান মেয়র জুয়েল কেন্দুয়ায় মৃত ব্যক্তি ভেঙ্গেছে নৌকা প্রার্থীর বাড়ীঘর ওসি শাহিনুজ্জামান’র শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হালুয়াঘাটে প্রতিবেশীকে ফাঁসাতে শশুরকে জবাই জামাতার! রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা বাউফলে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালিত হালুয়াঘাটে ঐতিহাসিক তেলিখালী যুদ্ধ দিবস উদযাপন বাউফলে যুবদলের ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পলিত নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

নিহত যুবলীগ নেতা রুমানের আবেগঘন স্ট্যাটাস নিয়ে তোলপাড়

প্রকাশিতঃ ৬:১২ অপরাহ্ণ | আগস্ট ০৬, ২০২০ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ১০৪ বার

বাউফল(পটুয়াখালী) প্রতিিিনধিঃ পটুয়াখালীর বাউফলে আওয়ামীলীগের অভ্যান্তরীন কোন্দলে নিহত কেশবপুর ইউনিয়ন যুবলীগীগ নেতা রুমানের নিজ ফেসবুক আইডিতে লেখা আবেগঘন দুটি স্ট্যাটাস নিয়ে গত দুদিন পর্যন্ত এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। স্টাটাস দুটি পড়লে নিহতের খুনের সাথে কারা জড়িত তা স্পষ্টভাবে বুঝা যায় বলে মন্তব্য করেছেন এলাকাবাসী। অথচ খুনের আগে যাদেরকে দায়ী করে নিহত রুমান তাঁর ফেসবুক আইডিতে স্টাটাস দিয়ে গেছেন তাদের মধ্যে একজনকে হত্যা মামলার আসামীই করা হয়নি। কোন অদৃশ্য কারনে ওই ব্যক্তিকে আসামী করা হয়নি তা জানেনা এলাকাবাসী। তাই এ নিয়ে এখন এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
এ বছরের জুলাই মাসের ১৩ তারিখ বিকেল ৫ টায় নিহত রুমন নিজ ফেসবুক আইডিতে যা লিখেছিলেন তা হুবহু তুলে ধরা হলোঃ- কাল রাত দশটায় চেয়ারম্যান বাড়ির দরজায় চটপটি খেতে গেছিলাম,সে এসে বোললো তুই আমারে অনেক জ্বালাইছ তোরে খুন করমু,ফাস্ট কেউ আমার সামনে এমন কথা বলছে আর আমি কিছু বলি নাই,তবে হু তার মত আমার জায়গায় না,আমি খুন হতে তার বাসায় যাব দেখি খুন করে না ভাগে। ফেরাউন এবার ইগোতে হেবি লাগছে,লেটস প্লে। দেখি আপনার কত পাওয়ার খুব তাড়াতাড়িই আসছি পারলে ঠেকাও,বেস্ট অফ লাক।কত বড় মাতাল হলে প্রকাশ্যে এমন কথা বলে,,করোনায় কার কি হবে তার খবর নাই সে বাড়ির দরজায় মদ খেয়ে খুনের হুমকি দেয়, পাগল।
এর আগে এপ্রিলের ২৬ তারিখ এক স্টাটাসে যা লিখেছিলেন তাও হুবহু তুলে ধরা হলোঃ- যদি আমার কোন র্দূঘটনা বা অপমৃত্যু হয় তাহলে কেশবপুরের লাভলু চেয়ারম্যান ও অভি দায়ী।তাই আমি প্রশাসনের কাছে ও আমার মহান নেতার কাছে এর বিচার দাবি করছি।বাউফলের কেউ না পারায় তারা পেশাদার খুনি আনায় ব্যস্ত।মিথ্যা বললে তদন্তকরে আমার শাশিÍ দিন,আর সত্যি বললে এই লাভু চেয়ারম্যানের বিচার করুন,খুন করার চেষ্ট করে উল্টো ভাগছে তাই ভাড়া খুনি আনতেছে, ।আমি প্রশাসনকে তদন্তের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।আর ন্যায় কাজ করা কি পাপ? বাউফল বাসীর কাছে প্রশ্ন।কথা মিথ্যা হলে আইন যে সাজা দিবে আমি নিতে রাজি।কথাটা পুরোপুরি সত্যি,লাভু চেয়ারম্যান ও অভি আমার যে কোন ক্ষতির জন্য দায়ি,আমার দোষটা কি ন্যায় কাজ করি সত্য বলি সেটা???
উল্লেখ্য, কোরবানীর পরের দিন রবিবার সন্ধ্যায় কেশবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও কেশবপুর কলেজের অধ্যাক্ষ সালেহউদ্দিন পিকুর ছোট ভাই রুমান তালুকদার(৩০) ও তাঁর চাচাতো ভাই ইসাত তালুকদারকে(২৪) কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে ওই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন লাভলুর সমর্থকরা।

Shares