আজ বুধবার , ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

কোভিড-১৯ প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে মেয়রের আহব্বান বাউফলে তারেক রহমানের জন্মবার্ষিকী পালিত বাউফলে প্রায়তঃ শিক্ষকের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া-মোনাজাত আত্মহত্যার পরও সূদের টাকার জন্য ফোন! ত্রিশালে সড়ক দূরঘটনায় একজন নিহত চার জন আহত ত্রিশালে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত আমতলীতে মাদ্রাসা মাঠে ধান চাষ বরগুনায় ১০ দোকান পুড়ে ছাই হৃদয় হত্যাকাণ্ডে জড়িত প্রত্যেকের ফাঁসি চান পরিবার আইপিএলে ,নিঃস্ব হচ্ছে অনেক পরিবার ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শাহ্ আহসান হাবীব বাবুর জন্ম দিন পালন বরগুনায় সেরা সম্পাদককে সংবর্ধনা বরগুনা বেতাগীর আলোচিত বজলু হত্যা মামলার ২ নম্বর আসামি আটক ত্রিশালে শহীদ বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান সড়ক উদ্বোধন ত্রিশালে বিভাগীয় কমিশনারের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

নিহত যুবলীগ নেতা রুমানের আবেগঘন স্ট্যাটাস নিয়ে তোলপাড়

প্রকাশিতঃ ৬:১২ অপরাহ্ণ | আগস্ট ০৬, ২০২০ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৩৫ বার

বাউফল(পটুয়াখালী) প্রতিিিনধিঃ পটুয়াখালীর বাউফলে আওয়ামীলীগের অভ্যান্তরীন কোন্দলে নিহত কেশবপুর ইউনিয়ন যুবলীগীগ নেতা রুমানের নিজ ফেসবুক আইডিতে লেখা আবেগঘন দুটি স্ট্যাটাস নিয়ে গত দুদিন পর্যন্ত এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। স্টাটাস দুটি পড়লে নিহতের খুনের সাথে কারা জড়িত তা স্পষ্টভাবে বুঝা যায় বলে মন্তব্য করেছেন এলাকাবাসী। অথচ খুনের আগে যাদেরকে দায়ী করে নিহত রুমান তাঁর ফেসবুক আইডিতে স্টাটাস দিয়ে গেছেন তাদের মধ্যে একজনকে হত্যা মামলার আসামীই করা হয়নি। কোন অদৃশ্য কারনে ওই ব্যক্তিকে আসামী করা হয়নি তা জানেনা এলাকাবাসী। তাই এ নিয়ে এখন এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
এ বছরের জুলাই মাসের ১৩ তারিখ বিকেল ৫ টায় নিহত রুমন নিজ ফেসবুক আইডিতে যা লিখেছিলেন তা হুবহু তুলে ধরা হলোঃ- কাল রাত দশটায় চেয়ারম্যান বাড়ির দরজায় চটপটি খেতে গেছিলাম,সে এসে বোললো তুই আমারে অনেক জ্বালাইছ তোরে খুন করমু,ফাস্ট কেউ আমার সামনে এমন কথা বলছে আর আমি কিছু বলি নাই,তবে হু তার মত আমার জায়গায় না,আমি খুন হতে তার বাসায় যাব দেখি খুন করে না ভাগে। ফেরাউন এবার ইগোতে হেবি লাগছে,লেটস প্লে। দেখি আপনার কত পাওয়ার খুব তাড়াতাড়িই আসছি পারলে ঠেকাও,বেস্ট অফ লাক।কত বড় মাতাল হলে প্রকাশ্যে এমন কথা বলে,,করোনায় কার কি হবে তার খবর নাই সে বাড়ির দরজায় মদ খেয়ে খুনের হুমকি দেয়, পাগল।
এর আগে এপ্রিলের ২৬ তারিখ এক স্টাটাসে যা লিখেছিলেন তাও হুবহু তুলে ধরা হলোঃ- যদি আমার কোন র্দূঘটনা বা অপমৃত্যু হয় তাহলে কেশবপুরের লাভলু চেয়ারম্যান ও অভি দায়ী।তাই আমি প্রশাসনের কাছে ও আমার মহান নেতার কাছে এর বিচার দাবি করছি।বাউফলের কেউ না পারায় তারা পেশাদার খুনি আনায় ব্যস্ত।মিথ্যা বললে তদন্তকরে আমার শাশিÍ দিন,আর সত্যি বললে এই লাভু চেয়ারম্যানের বিচার করুন,খুন করার চেষ্ট করে উল্টো ভাগছে তাই ভাড়া খুনি আনতেছে, ।আমি প্রশাসনকে তদন্তের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।আর ন্যায় কাজ করা কি পাপ? বাউফল বাসীর কাছে প্রশ্ন।কথা মিথ্যা হলে আইন যে সাজা দিবে আমি নিতে রাজি।কথাটা পুরোপুরি সত্যি,লাভু চেয়ারম্যান ও অভি আমার যে কোন ক্ষতির জন্য দায়ি,আমার দোষটা কি ন্যায় কাজ করি সত্য বলি সেটা???
উল্লেখ্য, কোরবানীর পরের দিন রবিবার সন্ধ্যায় কেশবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও কেশবপুর কলেজের অধ্যাক্ষ সালেহউদ্দিন পিকুর ছোট ভাই রুমান তালুকদার(৩০) ও তাঁর চাচাতো ভাই ইসাত তালুকদারকে(২৪) কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে ওই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন লাভলুর সমর্থকরা।

Shares