আজ শুক্রবার , ৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা কায়েসের ঈদ উপহার সচেতনতা মুলক স্টিকার ও মাস্ক বিতরণ করলো জনপ্রিয় সেচ্ছাসেবী সংঘঠন ত্রিশাল হেল্পলাইন আজ শফিকুল ইসলাম ভাইয়ের মৃত্যুবার্ষিকী খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় ত্রিশাল ছাত্রদলের পক্ষ থেকে ইফতার বিতরণ হালুয়াঘাটে কৃষকের ধান কাটলেন এমপি হালুয়াঘাটে কর্মহীন মানুষের মাঝে রুবেলে’র খাদ্য সামগ্রী বিতরণ! করোনাঃ মৃত্যুর মিছিলে ১৫৪ চিকিৎসক বাউফলে ডায়রিয়া আক্রান্তদের মাঝে বিনামূল্যে স্যালাইন বিতরণ বাউফলে টাকা চুরি’র ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক যুবককে কুপিয়ে জখম মৃত্যুপুরী ভারত শ্মশানে জায়গা না থাকায় গণচিতা ভারতে লুকানো হচ্ছে কোভিডে মৃতের সংখ্যা কমতে শুরু করেছে মৃত্যু ও শনাক্ত সংখ্যা বাউফলে ভ্রাম্যমান দুধ, ডিম ও মাংস বিক্রয়ে ব্যাপক সাড়া করোনা ভাইরাস: দিল্লির হাসপাতালে অক্সিজেন বিপর্যয়ে বহু রোগীর মৃত্যু হালুয়াঘাটে ঝুঁকিপূর্ণ সেতু! বিচ্ছিন্ন মালবাহী পণ্যের গাড়ী

বাউফলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনার আঘাত

প্রকাশিতঃ ২:৪৫ অপরাহ্ণ | জুন ১৯, ২০২০ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ১৪৬ বার

তোফাজ্জেল হোসেন,বাউফল(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি: সারা দেশের ন্যয় পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও আঘাত হানছে করোনা ভাইরাস। গত ২রা মার্চ থেকে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দিলে স্বাস্থ্য সেবায় ব্যস্ত হয়ে পড়েন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্য কর্মীরা । কোন ব্যক্তির করোনা ভাইরাসের উপসর্গ দেখা দিলে তাঁদের নমুনা সংগ্রহ করা, আক্রান্তদের আইসোলেশনে চিকিৎসা সেবা প্রদান , আক্রান্তদের সান্নিধ্যে এসেছেন এমন ব্যক্তিদের হোম কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করাসহ বিভিন্ন সেবা দিতে গিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাসহ ৭ জন স্বাস্থ্যকর্মী নিজেরাই এখন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।তবুও থেমে নেই চিকিৎসাসেবা। সার্বক্ষনিক করোনায় আক্রান্তদের নিরলসভাবে চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসকসহ মাঠ পর্যায়ের স্বাস্থ্য কর্মীরা। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, প্রথমে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন নান্নু মুনসী(৪৫) নামে এক চতুর্থ শ্রেনির কর্মচারী। এরপর পর্যায়ক্রমে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকসহ অন্যান্য স্বাস্থ্য কর্মীদের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠালে গত ১০ জুন রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকতা ডাঃ প্রশান্ত কুমার সাহা ও সবুজ নামে একজন হারবাল এ্যাসিস্ট্যন্টের কোভিড-১৯ পজেটিভ আসে। এরপরে ১২ জুন রাতে একজন এমটিইপিআই করোনা পজেটিভ সনাক্ত হয়। মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট মঞ্জুরুল হকের কোবিড-১৯ পজেটিভ আসে ১৭ জুন। সর্বশেষ গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার নাঈমুজ্জামান খান করোনা শিকার হন।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা(ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ আখতারুজ্জামান বলেন, স্বাস্থ্য সেবা দিতে গিয়ে উপজেলা স্বাস্থৗ কমপ্লেক্সের কর্মকর্তাসহ মোট ৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে নান্নু মুন্সী নামে চতুর্থ শ্রেনির একজন কর্মচারী সুস্থ্য হয়ে কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন। অন্যান্যরা সবাই হোম আইসোলেশনে চিকিৎসা সেবা গ্রহন করছেন। এখন পর্যন্ত শারীরিকভাবে সবাই সুস্থ্য আছেন।

Shares