আজ শুক্রবার , ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা বাউফলে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালিত হালুয়াঘাটে ঐতিহাসিক তেলিখালী যুদ্ধ দিবস উদযাপন বাউফলে যুবদলের ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পলিত নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার বিচারের দাবীতে আজ মানববন্ধন হালুয়াঘাটের শিমুলকুচি গ্রামে কামাল’র কুলখানি অনুষ্ঠিত হালুয়াঘাটে বৃদ্ধকে নির্যাতনের ঘটনায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ হালুয়াঘাটের ট্রলি উল্টে দুই বন্দর শ্রমিকের মৃত্যু, আহত ৬ মাছ ধরার জালে ঢিল ছোড়ায় খুন হন শিশু শিক্ষার্থী সুমন হালুয়াঘাটে ১ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে কুপিয়ে খুন এমপি’র কাছে নালিশ করায় বৃদ্ধকে পিটিয়েছে চেয়ারম্যান হালুয়াঘাটে প্রতারিত শত শত কৃষক

বাউফলে এক চিকিৎকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

প্রকাশিতঃ ১০:৩৩ অপরাহ্ণ | জুন ০৮, ২০২০ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২৪৪ বার

তোফাজ্জেল হোসেন,বাউফল(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফল হেলথ কেয়ার ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকের এক চিকিৎকের বিরুদ্ধে নারী স্টাফকে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই চিকিৎসকের নাম ডাঃ মোঃ শাহ আলম (৬৫)। তিনি এক সময় বাউফল স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হিসাবে চাকরী করতেন। বর্তমানে তিনি ওই ডায়াগনস্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকের এনেসথেসিয়ার চিকিৎসক হিসাবে কাজ করছেন। তার বাড়ি উপজেলার দাশপাড়া ইউনিয়নের দাশপাড়া গ্রামে।
অভিযোগ রয়েছে, পৌর শহরের হাসপাতাল রোড এলাকার বাউফল হেলথ কেয়ার ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকের নারী স্টাফকে (৩৫) ওই ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকের ডাঃ মোঃ শাহ আলম বেশ কিছু দিন ধরে যৌন হয়রানি করছেন। তাকে বিভিন্ন সময় কুপ্রস্তাব দেন। কিন্তু ওই নারী স্টাফ (ফিজিশিয়ান) তার কথায় রাজী না হওয়ায় ওই চিকিৎসক তাকে শারীরিক ও মানুষিক নির্যাতন শুরু করেন। কয়েক দিন অগে ওই চিকিৎসক নারী স্টাফকে ক্লিনিকে একটি রুমে ডেকে নিয়ে তার শরীরের আপত্তিকর সব জায়গায় হাত দেন এবং তাকে দিয়ে জোরপূর্বক শরীর ম্যাসেস করান।
ওই নারী স্টাফ অভিযোগ করেন, ওই চিকিৎসক তার প্যান্ড খুলে গোপনাঙ্গ ম্যাসেস করতে বলেন। প্রথম দিকে তিনি আপত্তি করলেও পরে নিরুপায় হয়ে সেই কাজটি করেন। এসময় ওই চিকিৎসক তাকে কুপ্রস্তা বদিলে তিনি রাজি হননি। এ ভাবে প্রতিদিন তাকে যৌন হয়রানি করা হয়। এ ঘটনা ওই ক্লিনিকের মালিক ও স্টাফরা জানলেও কেউ কোন ব্যবস্থা নেননি। বরং ওই চিকিৎসক এখন তাকে চাকুরিচ্যুত করার হুমকি দিচ্ছেন।
ওইচিকিৎসক কর্তৃক নারী স্টাফকে (ফিজিশিয়ানকে) যৌন হয়রানীর একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

Shares