আজ শুক্রবার , ৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা কায়েসের ঈদ উপহার সচেতনতা মুলক স্টিকার ও মাস্ক বিতরণ করলো জনপ্রিয় সেচ্ছাসেবী সংঘঠন ত্রিশাল হেল্পলাইন আজ শফিকুল ইসলাম ভাইয়ের মৃত্যুবার্ষিকী খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় ত্রিশাল ছাত্রদলের পক্ষ থেকে ইফতার বিতরণ হালুয়াঘাটে কৃষকের ধান কাটলেন এমপি হালুয়াঘাটে কর্মহীন মানুষের মাঝে রুবেলে’র খাদ্য সামগ্রী বিতরণ! করোনাঃ মৃত্যুর মিছিলে ১৫৪ চিকিৎসক বাউফলে ডায়রিয়া আক্রান্তদের মাঝে বিনামূল্যে স্যালাইন বিতরণ বাউফলে টাকা চুরি’র ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক যুবককে কুপিয়ে জখম মৃত্যুপুরী ভারত শ্মশানে জায়গা না থাকায় গণচিতা ভারতে লুকানো হচ্ছে কোভিডে মৃতের সংখ্যা কমতে শুরু করেছে মৃত্যু ও শনাক্ত সংখ্যা বাউফলে ভ্রাম্যমান দুধ, ডিম ও মাংস বিক্রয়ে ব্যাপক সাড়া করোনা ভাইরাস: দিল্লির হাসপাতালে অক্সিজেন বিপর্যয়ে বহু রোগীর মৃত্যু হালুয়াঘাটে ঝুঁকিপূর্ণ সেতু! বিচ্ছিন্ন মালবাহী পণ্যের গাড়ী

বাউফলে এক চিকিৎকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

প্রকাশিতঃ ১০:৩৩ অপরাহ্ণ | জুন ০৮, ২০২০ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২১৪ বার

তোফাজ্জেল হোসেন,বাউফল(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফল হেলথ কেয়ার ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকের এক চিকিৎকের বিরুদ্ধে নারী স্টাফকে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই চিকিৎসকের নাম ডাঃ মোঃ শাহ আলম (৬৫)। তিনি এক সময় বাউফল স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হিসাবে চাকরী করতেন। বর্তমানে তিনি ওই ডায়াগনস্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকের এনেসথেসিয়ার চিকিৎসক হিসাবে কাজ করছেন। তার বাড়ি উপজেলার দাশপাড়া ইউনিয়নের দাশপাড়া গ্রামে।
অভিযোগ রয়েছে, পৌর শহরের হাসপাতাল রোড এলাকার বাউফল হেলথ কেয়ার ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকের নারী স্টাফকে (৩৫) ওই ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এ্যান্ড ক্লিনিকের ডাঃ মোঃ শাহ আলম বেশ কিছু দিন ধরে যৌন হয়রানি করছেন। তাকে বিভিন্ন সময় কুপ্রস্তাব দেন। কিন্তু ওই নারী স্টাফ (ফিজিশিয়ান) তার কথায় রাজী না হওয়ায় ওই চিকিৎসক তাকে শারীরিক ও মানুষিক নির্যাতন শুরু করেন। কয়েক দিন অগে ওই চিকিৎসক নারী স্টাফকে ক্লিনিকে একটি রুমে ডেকে নিয়ে তার শরীরের আপত্তিকর সব জায়গায় হাত দেন এবং তাকে দিয়ে জোরপূর্বক শরীর ম্যাসেস করান।
ওই নারী স্টাফ অভিযোগ করেন, ওই চিকিৎসক তার প্যান্ড খুলে গোপনাঙ্গ ম্যাসেস করতে বলেন। প্রথম দিকে তিনি আপত্তি করলেও পরে নিরুপায় হয়ে সেই কাজটি করেন। এসময় ওই চিকিৎসক তাকে কুপ্রস্তা বদিলে তিনি রাজি হননি। এ ভাবে প্রতিদিন তাকে যৌন হয়রানি করা হয়। এ ঘটনা ওই ক্লিনিকের মালিক ও স্টাফরা জানলেও কেউ কোন ব্যবস্থা নেননি। বরং ওই চিকিৎসক এখন তাকে চাকুরিচ্যুত করার হুমকি দিচ্ছেন।
ওইচিকিৎসক কর্তৃক নারী স্টাফকে (ফিজিশিয়ানকে) যৌন হয়রানীর একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

Shares