আজ শনিবার , ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

রিফাত হত্যা রায় ৩০ সেপ্টেম্বর ! মিন্নির সাজা হবে কি? টাংগাইল সদরের (বুরো এনজিও) কর্মকর্তা খুন। মতলব উত্তরে আধুনিক প্রযুক্তিতে বীজ উৎপাদন সংরক্ষনে মাঠ দিবস অনুষ্টিত টাংগাইলে জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান লিটন কে কুপিয়ে হত্যা চেস্টা। টাংগাইলে চতুর্থ শ্রেণির (১০) এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা। রাঙ্গাবালীতে বিয়ের প্রতিশ্রæতিতে প্রতারণার অভিযোগ, চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হালুয়াঘাটে বিজিবি’র পিটুনিতে আহত-১ প্রশ্নবিদ্ধ টি.এইচ.ও ডা. সোহেলী শারমিন! কোটি টাকার দূর্ণীতির নেপথ্যে–? হালুয়াঘাটে নারী সোর্স সুমিসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ বাউফলে এক ব্যক্তির চোখ উৎপাটন হালুয়াঘাটে সুমী’র অপকর্ম ফাঁস! প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৮২৭ রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের স্বঘোষিত সভাপতির হুমকিতে ৫ সাংবাদিক এলাকাছাড়া করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু মসজিদে এসি বিস্ফোরণে মৃত বেড়ে ২৮

বৈধ লাইসেন্সের আড়ালে অবৈধ অস্ত্রের ব্যবসা ॥ আটক-১ ৮টি অস্ত্র ও ১ হাজার ৬০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার

প্রকাশিতঃ ৯:২২ অপরাহ্ণ | জুন ১৬, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ১৫৭ বার

এস.এম.মনির হোসেন জীবন ॥ বৈধ লাইসেন্সের আড়ালে অবৈধ অস্ত্র মজুত ও দেশের জলদস্যুদের কাছে সেইসব অস্ত্র বিক্রি করার অভিযোগে মো. বাবুল মিয়া (৫৭) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)। গ্রেফতার বাবুল মিয়া মেসার্স নেত্রকোনা আর্মস কোং এর স্বত্ত্বাধিকারী।
শুক্রবার দুপুরে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে সিটিটিসি’র প্রধান মনিরুল ইসলাম এ সব তথ্য জানান।
তিনি বলেন, গত ১১ জুন মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে মো. বাবুল মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে ১টি পিস্তল, একটি রিভলবার ও ১২৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।
সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, বাবুল মিয়া তাকে গ্রেফতারের সময় উদ্ধারকৃত অস্ত্রের কোনও কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। এরপর ১৪ জুন ময়মনসিংহের চুরখাইতে তার গ্রামের বাড়িতে অভিযান চালায় সিটিটিসি। তার বাড়ির মাটির নিচ থেকে কাগজপত্রবিহীন আরও ৮টি অস্ত্র ও ১ হাজার ৬০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।
তিনি আরো বলেন, ধৃত বাবুল মিয়া লাইসেন্সধারী বৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ী। তবে তার দোকানে কেবল একটি বৈধ অস্ত্র আছে দীর্ঘদিন ধরে। তাও বিক্রি হয় না। অনেকদিন তার রেজিস্টারে কোনও অস্ত্রের বেচাকেনা নেই। তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের রেজিস্টারেও বৈধ লাইসেন্স বিক্রির কোনও রেকর্ড নেই।
সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, মোহাম্মদ আলী বাবুলের আগ্নেয়াস্ত্রের বৈধ ডিলারশিপ থাকলেও বেশি মুনাফার লোভে দীর্ঘদিন ধরে সে অবৈধ উপায়ে অস্ত্র বেচাকেনা করে আসছিল। ময়মনসিংহ ,রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও খুলনার কয়েকজন বৈধ আগ্নেয়াস্ত্র ডিলারের সঙ্গে তার অবৈধ অস্ত্র কেনাবেচার তথ্য পাওয়া গেছে। বাবুলের বাড়িতে উদ্ধারকৃত অস্ত্রের সিংহভাগ খুলনার ডিলারের মাধ্যমে সুন্দরবনের জলদস্যুদের হাতে পৌঁছানোর পরিকল্পনা করা হয়েছিল।
মনিরুল ইসলাম বলেন, গত ১৫ জুন ডা. মো. জাহিদুল আলম কাদিরকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে গ্রেফতার করে সিটিটিসি। এরপর ৩ জুন তার স্ত্রী মাসুমা আখতারকে গাবতলী এলাকা থেকে অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে ডা. জাহিদুরের ময়মনসিংহের বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করে পুলিশ। জাহিদের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ অস্ত্রের বৈধ ডিলার ও অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ীদের তালিকা পায়, যাদের কাছ থেকে তারা অস্ত্রগুলো উদ্ধার করে। এরই ধারাবাহিকতায় বাবুল মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে বনানী থানায় মামলা হয়েছে।

Shares