আজ রবিবার , ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

এমপি মাহমুদুল হক সায়েমকে সি.আই.পি শামিমের সংবর্ধনা হালুয়াঘাটে ঈদে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হল স্বামীসহ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালুয়াঘাটের স্থলবন্দর দিয়ে ২৭টি পণ্যের আমদানী রপ্তানীর পরিকল্পনা-এমপি সায়েম হালুয়াঘাটে ২৭ হাজার দুস্থ অসহায় পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ১৩ বছর পর পদত্যাগ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হালুয়াঘাটে ফেইসবুক গ্রুপে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতা। পুরস্কার বিতরণ ‘কৃষ্ণনগরের কৃষ্ণকেশীর ‘বেহিসেবি রঙ.. হিমাদ্রিশেখর সরকার হালুয়াঘাট থেকে ফুলপুর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণসহ সড়ানো হচ্ছে অস্থায়ী বাস কাউন্টার জনগণের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি রাজপথে থাকবে-প্রিন্স ডামি নির্বাচন করে গণতন্ত্রকে আইসিইউতে পাঠিয়েছে আওয়ামী লীগ-প্রিন্স বাজারে পণ্যের অগ্নিমূল্যের তাপ তাদের গায়ে লাগেনা-প্রিন্স নালিতাবাড়ীতে প্রেসক্লাবের নির্বাচন, সভাপতি সোহেল সম্পাদক মনির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে-বিএনপি নেতা প্রিন্স হালুয়াঘাটে বিএনপি নেতা প্রিন্স’র লিফলেট বিতরণ ৯৮ দিন কারাভোগের পর নিজ এলাকায় বিএনপি নেতা প্রিন্সকে সংবর্ধনা

হালুয়াঘাটে ত্রিশ কোটি টাকার প্রকল্পে অনিয়ম! বালুর পরিবর্তে দেয়া হচ্ছে মাটি!

প্রকাশিতঃ ৪:৩৪ অপরাহ্ণ | মার্চ ২৩, ২০২০ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৩৫৬ বার

ওমর ফারুক সুমন: ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট স্থলবন্দরে নৌ-পরিবহন মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে ১৬.৪১ একর জায়গায় চলছে প্রায় ত্রিশ কোটি টাকার উন্নয়ের কাজ।মাটি ভরাট, পাইলিং ও বাউন্ডারি নির্মাণ করবে তিনটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান অনিক ট্রেডিং, ডিজি বাংলা ও এমএসি এন্টারপ্রাইজ। কিন্তু উক্ত প্রকল্পের কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। কর্তৃপক্ষের মতে উক্ত অধিগ্রহনকৃত জায়গায় বিট বালু দিয়ে ভরাট করার কথা থাকলেও তা ভরাট করা হচ্ছে মাটি দিয়ে।সরেজমিনে গত রবিবার প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন করতে গিয়ে দেখা যায়, পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে ফসলী জমি খনন করে ট্রাক দিয়ে আনছে মাটি। সেই মাটি দিয়েই ভরাট করছে পুরো জায়গাটুকু।চুক্তিমতে মাটি ভরাট করার পর বাউন্ডারি ও পাইলিং করার কথা রয়েছে। এ বিষয়ে প্রকল্প কো-অর্ডিনেটর মোর্শেদ আলী জানান, অনিক ট্রেডিং, ডিজি বাংলা ও এমএসি এন্টারপ্রাইজের ঠিকাদারগণ গত ১৭ ফেব্রুয়ারী থেকে উক্ত প্রকল্পের কাজ শুরু করে।আগামী ১ বৎসরের মাঝে কাজ শেষ করার কথা। মাটি ভরাট করার দায়িত্বে রয়েছে শুভল বাবু। তিনি বলেন, আমি প্রকল্পটি দেখভাল করি।কোন অবস্থাতেই বালুর পরিবর্তে মাটি দিতে পারবেনা। সেই সুযোগ নেই।যদি মাটি দিয়ে ভরাট করে তাহলে বিল উত্তোলন বন্ধ করে দেয়া হবে। এই বিষয়ে শুভল বাবুর সাথে কথা বললে মাটি দেয়ার কথা স্বীকার করেন। তিনি বলেন, কাজ বন্ধ রেখেছি। বালি দিয়েই পুনরায় ভরাট করার কাজ শুরু করবো।

Shares