আজ রবিবার , ৭ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাটের মামুন বাফুফে’র ক্যাপ্টেন নির্বাচিত হওয়ায় সংবর্ধনা ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে পৃথক স্থানে ট্রেনে কাটা পড়ে ২জন নিহত এমপি’র পক্ষে হালুয়াঘাট ধান্য ব্যবসায়ী সমিতির কম্বল বিতরণ ধোবাউড়ায় ট্রাক-হোন্ডা সংঘর্ষে নিহত-২, চালক ও হেলপার আটক বাউফলে ইউপি চেয়ারম্যানের ওপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি হালুয়াঘাটে ঝরে পড়া শিশুরা পাবে শিক্ষার সুযোগ। আসছে শিক্ষক নিয়োগও হালুয়াঘাটে স্বামীর আত্নহত্যা দেখে স্ত্রীও বিষ খায়! দুজনেরই মৃত্যু হালুয়াঘাটে স্বামী-স্ত্রীর আত্নহত্যা রাহেলা হযরত মডেল স্কুলে প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে ভাষা শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধাঞ্জলি ভাষা শহীদদের প্রতি কংশ টিভির পরিবার ও গণমাধ্যম কর্মীদের শ্রদ্ধাঞ্জলী ফুটবল ফাইনাল টুর্নামেন্টে বিজয়ী মধুপুর একাদশ স্পোটিং ক্লাব ২৮ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়লো ময়মনসিংহ জেলার শ্রেষ্ট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ত্রিশালের মোস্তাফিজুর রহমান হালুয়াঘাটে পিকনিকের বাস উল্টে আহত-৮

মহিষের গলায় ছুরি চালাতে গিয়ে মহিষ দৌড়! আহত ১১

প্রকাশিতঃ ৯:২৭ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৩, ২০১৯ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২০৯ বার

ভুঞাপুর সংবাদদাতাঃ টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে কোরবানির দেয়ার সময় লাফিয়ে উঠা মহিষের আক্রমনে ১১জনকে আহত করেছে। তারা বিভিন্ন হাসপাতলে ভর্তি রয়েছেন। মহিষটির আশপাশে কেউ ভিড়তে পাড়ছেন না। এদিকে ক্ষিপ্ত এ মহিষটিকে মারতে ভূঞাপুর থানা পুলিশের পক্ষ থেকে গুলি ছোঁড়া হলেও তা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে যায়।

সোমবার ঘাটাইল উপজেলার যুগিহাটি গ্রামের আরিফুল সরকারের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। বর্তমানে মহিষটি ভূঞাপুর উপজেলার নিকলা গ্রামে অবস্থান করছে। মহিষের আক্রমনে আহতরা হলেন যুগিহাটি গ্রামের আরিফুল ইসলাম, ইকবাল সরকার, আতাউর সরকার, শহিদুল ইসলাম, আমিনুল ইসলামসহ ১১জন।

স্থানীয়রা জানান, ঈদ উপলক্ষে যুগিহাটি গ্রামের আরিফুল ইসলামের একটি মহিষ কয়েকজন মিলে কুরবানির জন্য ক্রয় করে। ঈদের দিন সকাল ১১টায় কোরবানি দেয়ার সময় মহিষটি মাটি থেকে লাফিয়ে উঠে।

সেখানে থাকা একই পরিবারের আরিফুল ইসলাম, ইকবাল সরকার, আতাউর সরকার, শহিদুল ইসলাম, আমিনুল ইসলামকে আহত করে। পরবর্তীতে আরো ৬ জনকে আহত করে। পাগল এ মহিষটিকে নিয়ন্ত্রণে ঘাটাইল থানার পুলিশ কোন উদ্যোগ না নেয়ায় মহিষটি ভুঞাপুর উপজেলার চরনিকলা গ্রামে চলে আসে। পরে ভুঞাপুর থানা পুলিশ মহিষকে মেরে ফেলার জন্য গুলি ছুড়লে সেটি মহিষের গায়ে না লেগে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে যায়। এ মহিষকে ঘিরে সাধারন মানুষের মাঝে বিরাজ করছে আতঙ্ক। ভয়কে জয় করেও হাজার হাজার মানুষ ছুটে যাচ্ছেন মহিষটিকে দেখার জন্য।

এ বিষয়ে ভুঞাপুর থানার উপ-পরিদর্শক টিটু চৌধুরী বলেন, ভুঞাপুর উপজেলার ইউএনও ঝোটন চন্দের নির্দেশে ক্ষিপ্ত ওই মহিষটিকে লক্ষ্য করে এক রাউন্ড গুলি ছোঁড়া হয়। এতে মহিষটি সরে গেলে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ততক্ষণে মহিষটিকে দেখতে আশপাশের হাজারোও উৎসুক মানুষ চলে আসে। এতে পুনরায় ফায়ারিং করা সম্ভব হয়নি মানুষের নিরাপত্তার বিষয়টি চিন্তা করে। বারবার উৎসুক জনতাকে সেখান থেকে সরাতে মাইকে করা হলেও তারা কোন কর্ণপাত করছে না। এখন পর্যন্তও মহিষটিকে নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি।

Shares