আজ শনিবার , ২৮শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাটে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু ওজনে ধান বেশী নেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ নালিতাবাড়ীতে মাংস বিক্রেতাদের জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত নালিতাবাড়ীতে অগ্নিকাণ্ডে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ বসতঘর পুড়ে ক্ষয়ক্ষতি “মুক্তিযুদ্ধে হালুয়াঘাট” গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত প্রকল্পের পাওনা টাকা দাবী: ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে হামলার অভিযোগ “মুক্তিযুদ্ধে হালুয়াঘাট” গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত নালিতাবাড়ীর মাদক ব‍্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব হালুয়াঘাটে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত শেরপুরে স্বামী পরিত্যক্তা তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ: গ্রেফতার এক নালিতাবাড়ীতে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন নালিতাবাড়ীতে র‍্যাবের হাতে বিদেশী মদসহ যূবক গ্রেফতার তিনানী বাজার থেকে সয়াবিন তেল জব্ধ,লাখ টাকা জরিমানা নালিতাবাড়ী প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের অভিযোগে একজন আটক নালিতাবাড়ীতে গতি রোধ করে গরু ব্যবসায়ীর উপর বিজিবি’র গুলি, আহত তিন

মহিষের গলায় ছুরি চালাতে গিয়ে মহিষ দৌড়! আহত ১১

প্রকাশিতঃ ৯:২৭ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৩, ২০১৯ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২৯৩ বার

ভুঞাপুর সংবাদদাতাঃ টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে কোরবানির দেয়ার সময় লাফিয়ে উঠা মহিষের আক্রমনে ১১জনকে আহত করেছে। তারা বিভিন্ন হাসপাতলে ভর্তি রয়েছেন। মহিষটির আশপাশে কেউ ভিড়তে পাড়ছেন না। এদিকে ক্ষিপ্ত এ মহিষটিকে মারতে ভূঞাপুর থানা পুলিশের পক্ষ থেকে গুলি ছোঁড়া হলেও তা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে যায়।

সোমবার ঘাটাইল উপজেলার যুগিহাটি গ্রামের আরিফুল সরকারের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। বর্তমানে মহিষটি ভূঞাপুর উপজেলার নিকলা গ্রামে অবস্থান করছে। মহিষের আক্রমনে আহতরা হলেন যুগিহাটি গ্রামের আরিফুল ইসলাম, ইকবাল সরকার, আতাউর সরকার, শহিদুল ইসলাম, আমিনুল ইসলামসহ ১১জন।

স্থানীয়রা জানান, ঈদ উপলক্ষে যুগিহাটি গ্রামের আরিফুল ইসলামের একটি মহিষ কয়েকজন মিলে কুরবানির জন্য ক্রয় করে। ঈদের দিন সকাল ১১টায় কোরবানি দেয়ার সময় মহিষটি মাটি থেকে লাফিয়ে উঠে।

সেখানে থাকা একই পরিবারের আরিফুল ইসলাম, ইকবাল সরকার, আতাউর সরকার, শহিদুল ইসলাম, আমিনুল ইসলামকে আহত করে। পরবর্তীতে আরো ৬ জনকে আহত করে। পাগল এ মহিষটিকে নিয়ন্ত্রণে ঘাটাইল থানার পুলিশ কোন উদ্যোগ না নেয়ায় মহিষটি ভুঞাপুর উপজেলার চরনিকলা গ্রামে চলে আসে। পরে ভুঞাপুর থানা পুলিশ মহিষকে মেরে ফেলার জন্য গুলি ছুড়লে সেটি মহিষের গায়ে না লেগে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে যায়। এ মহিষকে ঘিরে সাধারন মানুষের মাঝে বিরাজ করছে আতঙ্ক। ভয়কে জয় করেও হাজার হাজার মানুষ ছুটে যাচ্ছেন মহিষটিকে দেখার জন্য।

এ বিষয়ে ভুঞাপুর থানার উপ-পরিদর্শক টিটু চৌধুরী বলেন, ভুঞাপুর উপজেলার ইউএনও ঝোটন চন্দের নির্দেশে ক্ষিপ্ত ওই মহিষটিকে লক্ষ্য করে এক রাউন্ড গুলি ছোঁড়া হয়। এতে মহিষটি সরে গেলে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ততক্ষণে মহিষটিকে দেখতে আশপাশের হাজারোও উৎসুক মানুষ চলে আসে। এতে পুনরায় ফায়ারিং করা সম্ভব হয়নি মানুষের নিরাপত্তার বিষয়টি চিন্তা করে। বারবার উৎসুক জনতাকে সেখান থেকে সরাতে মাইকে করা হলেও তারা কোন কর্ণপাত করছে না। এখন পর্যন্তও মহিষটিকে নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি।

Shares