আজ শুক্রবার , ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাটে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু ওজনে ধান বেশী নেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ নালিতাবাড়ীতে মাংস বিক্রেতাদের জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত নালিতাবাড়ীতে অগ্নিকাণ্ডে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ বসতঘর পুড়ে ক্ষয়ক্ষতি “মুক্তিযুদ্ধে হালুয়াঘাট” গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত প্রকল্পের পাওনা টাকা দাবী: ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে হামলার অভিযোগ “মুক্তিযুদ্ধে হালুয়াঘাট” গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত নালিতাবাড়ীর মাদক ব‍্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব হালুয়াঘাটে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত শেরপুরে স্বামী পরিত্যক্তা তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ: গ্রেফতার এক নালিতাবাড়ীতে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন নালিতাবাড়ীতে র‍্যাবের হাতে বিদেশী মদসহ যূবক গ্রেফতার তিনানী বাজার থেকে সয়াবিন তেল জব্ধ,লাখ টাকা জরিমানা নালিতাবাড়ী প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের অভিযোগে একজন আটক নালিতাবাড়ীতে গতি রোধ করে গরু ব্যবসায়ীর উপর বিজিবি’র গুলি, আহত তিন

ময়মনসিংহে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য, ফসলি জমি দখল করে মাটি বিক্রি!

প্রকাশিতঃ ৫:৩৯ অপরাহ্ণ | মার্চ ১৯, ২০১৯ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৩২৩ বার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ময়মনসিংহ ১৯ মার্চ: ময়মনসিংহে সদর উপজেলার সুহিলা কাটাখালপাড় গ্রামে আদালতের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ফসলি জমি জবর দখল করে যন্ত্র দিয়ে মাটি খুড়ে বিক্রি করছেন স্থানীয় প্রভাবশালী সন্ত্রাসীরা। এনিয়ে প্রশাসনেরর কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছে না নিরীহ ভূক্তভোগী পরিবার।

এদিকে ভুক্তভোগী ছফির উদ্দিন জানান, পূর্ববিরোধের জের ধরে স্থানীয় সন্ত্রাসীদের গডফাদার হুমায়ুনের নেতৃত্বে একদল স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের সাড়ে ১০ কাঠা খারিজ ফসলি ভূমি জবর দখল করে যন্ত্র দিয়ে মাটি খুড়ে বিক্রি করছে। বাধাঁ দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা জানে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। ঘটনাটি নিয়ে থানা পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হলেও কোন প্রতিকার মিলছে না।

অপর ভূক্তভোগী আ: মোতালেব জানান, ওই ভূমিতে বিজ্ঞ আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারী করেছেন। কিন্তু সন্ত্রাসী হুমায়ুন আদালতের আদেশ অমান্য করে যন্ত্র দিয়ে গর্ত খুড়ে মাটি বিক্রি করছে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ভাবে অসংখ্য বার শালিস হলেও বিচার মানছেন না হুমায়ুন। বর্তমানে পরিবার নিয়ে আমরা সন্ত্রাসী হুমকির মুখে আতংকে দিনযাপন করছি।

অন্যদিকে সদর উপজেলার ১১ নং ঘাগড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাজাহান সরকার সাজু জানান, মালিকানা বিরোধের জের ধরে অনেক বার শালিস হয়েছে। কিন্তু আপোষ হয়নি। বর্তমানে হুমায়ুন ওই জমি থেকে মাটি কেটে বিক্রি করছে। তবে প্রকৃত মালিক কে ? তা বলতে পারছি না।

এদিকে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে হুমায়ুন বলেন, আমি আমার জমি থেকেই মাটি কেটে বিক্রি করছি। তাদের অভিযোগ মিথ্যা।

এ বিষয়ে কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মাহমুদুল হাসান বলেন, ফসলি জমি নষ্ট করা আইনে অপরাধ। এ ধরনের কোন ঘটনা জানা নেই। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে এসিল্যান্ড ভালো বলতে পারবেন।
ছবি

Shares