আজ বুধবার , ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

এমপি মাহমুদুল হক সায়েমকে সি.আই.পি শামিমের সংবর্ধনা হালুয়াঘাটে ঈদে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হল স্বামীসহ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালুয়াঘাটের স্থলবন্দর দিয়ে ২৭টি পণ্যের আমদানী রপ্তানীর পরিকল্পনা-এমপি সায়েম হালুয়াঘাটে ২৭ হাজার দুস্থ অসহায় পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ১৩ বছর পর পদত্যাগ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হালুয়াঘাটে ফেইসবুক গ্রুপে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতা। পুরস্কার বিতরণ ‘কৃষ্ণনগরের কৃষ্ণকেশীর ‘বেহিসেবি রঙ.. হিমাদ্রিশেখর সরকার হালুয়াঘাট থেকে ফুলপুর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণসহ সড়ানো হচ্ছে অস্থায়ী বাস কাউন্টার জনগণের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি রাজপথে থাকবে-প্রিন্স ডামি নির্বাচন করে গণতন্ত্রকে আইসিইউতে পাঠিয়েছে আওয়ামী লীগ-প্রিন্স বাজারে পণ্যের অগ্নিমূল্যের তাপ তাদের গায়ে লাগেনা-প্রিন্স নালিতাবাড়ীতে প্রেসক্লাবের নির্বাচন, সভাপতি সোহেল সম্পাদক মনির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে-বিএনপি নেতা প্রিন্স হালুয়াঘাটে বিএনপি নেতা প্রিন্স’র লিফলেট বিতরণ ৯৮ দিন কারাভোগের পর নিজ এলাকায় বিএনপি নেতা প্রিন্সকে সংবর্ধনা

ময়মনসিংহে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য, ফসলি জমি দখল করে মাটি বিক্রি!

প্রকাশিতঃ ৫:৩৯ অপরাহ্ণ | মার্চ ১৯, ২০১৯ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৪৬০ বার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ময়মনসিংহ ১৯ মার্চ: ময়মনসিংহে সদর উপজেলার সুহিলা কাটাখালপাড় গ্রামে আদালতের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ফসলি জমি জবর দখল করে যন্ত্র দিয়ে মাটি খুড়ে বিক্রি করছেন স্থানীয় প্রভাবশালী সন্ত্রাসীরা। এনিয়ে প্রশাসনেরর কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছে না নিরীহ ভূক্তভোগী পরিবার।

এদিকে ভুক্তভোগী ছফির উদ্দিন জানান, পূর্ববিরোধের জের ধরে স্থানীয় সন্ত্রাসীদের গডফাদার হুমায়ুনের নেতৃত্বে একদল স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের সাড়ে ১০ কাঠা খারিজ ফসলি ভূমি জবর দখল করে যন্ত্র দিয়ে মাটি খুড়ে বিক্রি করছে। বাধাঁ দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা জানে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। ঘটনাটি নিয়ে থানা পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হলেও কোন প্রতিকার মিলছে না।

অপর ভূক্তভোগী আ: মোতালেব জানান, ওই ভূমিতে বিজ্ঞ আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারী করেছেন। কিন্তু সন্ত্রাসী হুমায়ুন আদালতের আদেশ অমান্য করে যন্ত্র দিয়ে গর্ত খুড়ে মাটি বিক্রি করছে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ভাবে অসংখ্য বার শালিস হলেও বিচার মানছেন না হুমায়ুন। বর্তমানে পরিবার নিয়ে আমরা সন্ত্রাসী হুমকির মুখে আতংকে দিনযাপন করছি।

অন্যদিকে সদর উপজেলার ১১ নং ঘাগড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাজাহান সরকার সাজু জানান, মালিকানা বিরোধের জের ধরে অনেক বার শালিস হয়েছে। কিন্তু আপোষ হয়নি। বর্তমানে হুমায়ুন ওই জমি থেকে মাটি কেটে বিক্রি করছে। তবে প্রকৃত মালিক কে ? তা বলতে পারছি না।

এদিকে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে হুমায়ুন বলেন, আমি আমার জমি থেকেই মাটি কেটে বিক্রি করছি। তাদের অভিযোগ মিথ্যা।

এ বিষয়ে কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মাহমুদুল হাসান বলেন, ফসলি জমি নষ্ট করা আইনে অপরাধ। এ ধরনের কোন ঘটনা জানা নেই। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে এসিল্যান্ড ভালো বলতে পারবেন।
ছবি

Shares