আজ শনিবার , ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাটে এক শত গৃহহীন পরিবারকে প্রধান মন্ত্রীর দেয়া ঘর হস্তান্তর হালুয়াঘাটে ১২শত মানুষের মাঝে ‘প্রিন্সে’র শীত বস্ত্র বিতরণ পাটগ্রাম সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত চুয়াডাঙ্গায় স্বামীর মোটরসাইকেল থেকে পড়ে নিহত ১ ময়মনসিংহের ত্রিশাল সরকারি নজরুল একাডেমি ভর্তির লটারীর ড্র অনুষ্ঠিত ময়মনসিংহের ত্রিশাল কুড়াগাছা রাস্তার বেহাল দশা ময়মনসিংহের ত্রিশাল পৌরসভার বাতিলকৃত নির্বাচন ১৪ই ফেব্রুয়ারী আর কলেজে ভর্তি হওয়া হলো না নুসরাতের দুইবারের বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সভাপতি নয়, হাইকোর্টের রায় স্টামফোর্ড সাংবাদিক ফোরামের সহ-সভাপতি হলেন বাউফলের মাজহারুল তামিম বাউফল প্রেসক্লাবের নব নির্বাচিত কমিটির শপথ গ্রহন বাউফলে আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত যাত্রীবাহি বাসে অজ্ঞান পার্টির ৫ জন ধৃত বাউফলে গোদরোগ প্রতিরোধে সামাজিক উদ্বুদ্ধকরণ সভা অনুষ্ঠিত হালুয়াঘাটে পানিতে ডুবে যুবকের মৃত্যু

ময়মনসিংহে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য, ফসলি জমি দখল করে মাটি বিক্রি!

প্রকাশিতঃ ৫:৩৯ অপরাহ্ণ | মার্চ ১৯, ২০১৯ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২২১ বার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ময়মনসিংহ ১৯ মার্চ: ময়মনসিংহে সদর উপজেলার সুহিলা কাটাখালপাড় গ্রামে আদালতের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ফসলি জমি জবর দখল করে যন্ত্র দিয়ে মাটি খুড়ে বিক্রি করছেন স্থানীয় প্রভাবশালী সন্ত্রাসীরা। এনিয়ে প্রশাসনেরর কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছে না নিরীহ ভূক্তভোগী পরিবার।

এদিকে ভুক্তভোগী ছফির উদ্দিন জানান, পূর্ববিরোধের জের ধরে স্থানীয় সন্ত্রাসীদের গডফাদার হুমায়ুনের নেতৃত্বে একদল স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের সাড়ে ১০ কাঠা খারিজ ফসলি ভূমি জবর দখল করে যন্ত্র দিয়ে মাটি খুড়ে বিক্রি করছে। বাধাঁ দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা জানে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। ঘটনাটি নিয়ে থানা পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হলেও কোন প্রতিকার মিলছে না।

অপর ভূক্তভোগী আ: মোতালেব জানান, ওই ভূমিতে বিজ্ঞ আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারী করেছেন। কিন্তু সন্ত্রাসী হুমায়ুন আদালতের আদেশ অমান্য করে যন্ত্র দিয়ে গর্ত খুড়ে মাটি বিক্রি করছে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ভাবে অসংখ্য বার শালিস হলেও বিচার মানছেন না হুমায়ুন। বর্তমানে পরিবার নিয়ে আমরা সন্ত্রাসী হুমকির মুখে আতংকে দিনযাপন করছি।

অন্যদিকে সদর উপজেলার ১১ নং ঘাগড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাজাহান সরকার সাজু জানান, মালিকানা বিরোধের জের ধরে অনেক বার শালিস হয়েছে। কিন্তু আপোষ হয়নি। বর্তমানে হুমায়ুন ওই জমি থেকে মাটি কেটে বিক্রি করছে। তবে প্রকৃত মালিক কে ? তা বলতে পারছি না।

এদিকে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে হুমায়ুন বলেন, আমি আমার জমি থেকেই মাটি কেটে বিক্রি করছি। তাদের অভিযোগ মিথ্যা।

এ বিষয়ে কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মাহমুদুল হাসান বলেন, ফসলি জমি নষ্ট করা আইনে অপরাধ। এ ধরনের কোন ঘটনা জানা নেই। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে এসিল্যান্ড ভালো বলতে পারবেন।
ছবি

Shares