আজ বৃহস্পতিবার , ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বাউফলে সাবেক এমপি শহীদুল আলম তালুকদারের মতবিনিময় সভা হালুয়াঘাটে নবান্নকে ঘিরে পিঠা পুলির উৎসব! কোভিড-১৯ প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে মেয়রের আহব্বান বাউফলে তারেক রহমানের জন্মবার্ষিকী পালিত বাউফলে প্রায়তঃ শিক্ষকের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া-মোনাজাত আত্মহত্যার পরও সূদের টাকার জন্য ফোন! ত্রিশালে সড়ক দূরঘটনায় একজন নিহত চার জন আহত ত্রিশালে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত আমতলীতে মাদ্রাসা মাঠে ধান চাষ বরগুনায় ১০ দোকান পুড়ে ছাই হৃদয় হত্যাকাণ্ডে জড়িত প্রত্যেকের ফাঁসি চান পরিবার আইপিএলে ,নিঃস্ব হচ্ছে অনেক পরিবার ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শাহ্ আহসান হাবীব বাবুর জন্ম দিন পালন বরগুনায় সেরা সম্পাদককে সংবর্ধনা বরগুনা বেতাগীর আলোচিত বজলু হত্যা মামলার ২ নম্বর আসামি আটক

দিপার প্রেমিক কামরুলের মৃত্যু!

প্রকাশিতঃ ৭:২৫ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ১০, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২১৬ বার

অনলাইন ডেস্কঃ রংপুর আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক আইনজীবী রথীশচন্দ্র ভৌমিক বাবুসোনা হত্যা মামলার প্রধান আসামি স্নিগ্ধা সরকার দীপার প্রেমিক শিক্ষক কামরুল ইসলাম মারা গেছেন। কামরুল ডায়াবেটিস ও হৃদরোগের সমস্যায় ভুগছিলেন। রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আমজাদ হোসেন জানন, শনিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মার যান। কামরুল ‘বেশ কিছুদিন ধরে ডায়াবেটিক ও হৃদরোগের সমস্যায় ভুগছিলেন’ জানিয়ে তিনি বলেন, শনিবার ভোরে তিনি গুরুতর অসুস্থ হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভোর সাড়ে ৫টার দিকে মৃত্যু হয়। হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ স্ট্রাস্টের ট্রাস্টি ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক রথিশের মৃত্যু হয় চলতি বছর ২৯ মার্চ। পরে মোল্লাপাড়ায় কামরুলের ভাইয়ের নির্মাণাধীন বাড়ির মেঝে খুঁড়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ৩ এপ্রিল রথিশের স্ত্রী স্নিগ্ধা সরকার ওরফে দীপা ভৌমিককে আটক করে র‌্যাব। স্নিগ্ধার বরাতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়, পরকীয়ার জেরে স্নিগ্ধা ও কামরুল ১০টি ঘুমের ওষুধ খাইয়ে শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করেন। পরে কামরুলও আটক হন। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক অজয় রায় বলেন, “হাসপাতালের আনার কিছুক্ষণ পরই কামরুল মারা যান। কী কারণে মারা গেছেন তা ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে বোঝা যাবে।” ময়নাতদন্তের জন্য লাশ পুলিশে দেওয়া হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে দেওয়া হবে।

Shares