আজ মঙ্গলবার , ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

ভালুকায় সাংবাদিক নিগ্রহের বিচার দাবিতে মানববন্ধন রিফাত হত্যা রায় ৩০ সেপ্টেম্বর ! মিন্নির সাজা হবে কি? টাংগাইল সদরের (বুরো এনজিও) কর্মকর্তা খুন। মতলব উত্তরে আধুনিক প্রযুক্তিতে বীজ উৎপাদন সংরক্ষনে মাঠ দিবস অনুষ্টিত টাংগাইলে জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান লিটন কে কুপিয়ে হত্যা চেস্টা। টাংগাইলে চতুর্থ শ্রেণির (১০) এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা। রাঙ্গাবালীতে বিয়ের প্রতিশ্রæতিতে প্রতারণার অভিযোগ, চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হালুয়াঘাটে বিজিবি’র পিটুনিতে আহত-১ প্রশ্নবিদ্ধ টি.এইচ.ও ডা. সোহেলী শারমিন! কোটি টাকার দূর্ণীতির নেপথ্যে–? হালুয়াঘাটে নারী সোর্স সুমিসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ বাউফলে এক ব্যক্তির চোখ উৎপাটন হালুয়াঘাটে সুমী’র অপকর্ম ফাঁস! প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৮২৭ রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের স্বঘোষিত সভাপতির হুমকিতে ৫ সাংবাদিক এলাকাছাড়া করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু

যশোহরে লাশ দাফনের ১১দিন পর জীবিত উদ্ধার

প্রকাশিতঃ ১১:২৭ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৯, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৫৭৫ বার

অনলাইন ডেস্কঃ যশোহরের চৌগাছায় সাথী খাতুন নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার ও এর ১১ দিন পর তাকে জীবিত উদ্ধারের ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। পরকীয়া করে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে থাকা এই গৃহবধূকে রোববার ভোরের দিকে সদর উপজেলার ইছালি এলাকার জলকর গ্রামের মিজানুর রহমানের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

সাথী খাতুন চৌগাছার নয়ড়া গ্রামের আমজেদ আলীর মেয়ে এবং একই উপজেলার চাঁদপাড়া গ্রামের গোলাম মোস্তফার স্ত্রী। তাদের এহসান নামে ছয় বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। স্বামী সন্তান সংসার ফেলে গত ১৪ জুলাই তিনি প্রেমিক চাঁদপাড়া গ্রামের (স্বামীর প্রতিবেশী) মান্নুর সঙ্গে পালিয়ে গিয়ে জলকর গ্রামে অবস্থান করছিলেন।

যশোর কোতোয়ালি থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই আমিরুজ্জামান জানান, গত ১৪ জুলাই সাথী খাতুন বাইরে কাজে যাচ্ছেন বিকেলে ফিরবেন বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর থেকে তার কোনো সন্ধান ছিল না।

এদিকে, গত ২৯ আগস্ট রাতে যশোরে সরকারি সিটি কলেজ এলাকা থেকে পলিথিনে মোড়ানো এক তরুণীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। পরদিন ৩০ আগস্ট আমজেদ আলী লাশটি তার মেয়ের বলে শনাক্ত করেন। এ ঘটনায় যশোর কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা হয়। এ হত্যা রহস্য উদঘাটনে পুলিশ তদন্ত করতে থাকে। এরই মধ্যে গোপন সূত্রে পুলিশ জানতে পারে সাথী হত্যাকাণ্ডের শিকার হননি। তিনি জীবিত আছেন এবং প্রেমিক মান্নুর ধর্মপিতা সদর উপজেলার ইছালি এলাকার জলকার গ্রামে মিজানুর রহমানের বাড়িতে অবস্থা করছেন।

এসআই আমিরুজ্জামান আরো জানান, সাথীকে উদ্ধারে রোববার ভোররাতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। পরে তাকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে এক পর্যায়ে সে প্রকৃত ঘটনা খুলে বলে।

সাথী পুলিশকে জানিয়েছে, পুলিশ ও এলাকাবাসীর চোখ ফাঁকি দিতে এই হত্যার নাটক সাজানো হয়।

এদিকে, পলিথিনে মোড়ানো গলাকাটা লাশটি তাহলে কোন তরুণীর সেটি নিয়ে মানুষের মধ্যে কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, তারা পলিথিনে মোড়ানো লাশের রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে।

Shares