আজ বৃহস্পতিবার , ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বাউফলে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ বাউফল উপজেলা ও পৌর সেচ্ছাসেবক দলের আহব্বায়ক কমিটি ঘোষণা বাউফলে ইউএনও’র বিদায়ী সংবর্ধনা নালিতাবাড়ীতে জেলা শিক্ষা অফিসারের বিদ্যালয় পরিদর্শন বাউফলে বিএনপি’র ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত বাউফলে ছেলের বিচার চেয়ে বাবা মায়ের সাংবাদিক সম্মেলন বাউফলে জাতীয় মৎস সপ্তাহ শুরু হালুয়াঘাটে বজ্রপাতে মৃত্যু! বাবার লাশের পাশে দেড় বছরের শিশু ‘নুসাইবা’ হালুয়াঘাটে নির্মাণের বছরেই বক্স কালভার্ট ধ্বস! বাউফলে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া-মোনাজাত ভিক্ষের টাকা গণনা করছিলো ভিক্ষুক। ইমাম বাসের চাপায় মৃত্যু ঐ ভিক্ষুকের শোক দিবসে হালুয়াঘাটে বিজিবি’র ত্রাণ বিতরণ বাউফলে সফিউল বারী বাবু’র মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া-মোনাজাত করোনা টেস্ট করাতে অনিহা হালুয়াঘাটে করোনায় আক্তান্ত হয়ে ৯৬ বছরের বৃদ্ধের মৃত্যু। মোট মৃত্যু-৭

যশোহরে লাশ দাফনের ১১দিন পর জীবিত উদ্ধার

প্রকাশিতঃ ১১:২৭ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৯, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৬৪৪ বার

অনলাইন ডেস্কঃ যশোহরের চৌগাছায় সাথী খাতুন নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার ও এর ১১ দিন পর তাকে জীবিত উদ্ধারের ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। পরকীয়া করে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে থাকা এই গৃহবধূকে রোববার ভোরের দিকে সদর উপজেলার ইছালি এলাকার জলকর গ্রামের মিজানুর রহমানের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

সাথী খাতুন চৌগাছার নয়ড়া গ্রামের আমজেদ আলীর মেয়ে এবং একই উপজেলার চাঁদপাড়া গ্রামের গোলাম মোস্তফার স্ত্রী। তাদের এহসান নামে ছয় বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। স্বামী সন্তান সংসার ফেলে গত ১৪ জুলাই তিনি প্রেমিক চাঁদপাড়া গ্রামের (স্বামীর প্রতিবেশী) মান্নুর সঙ্গে পালিয়ে গিয়ে জলকর গ্রামে অবস্থান করছিলেন।

যশোর কোতোয়ালি থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই আমিরুজ্জামান জানান, গত ১৪ জুলাই সাথী খাতুন বাইরে কাজে যাচ্ছেন বিকেলে ফিরবেন বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর থেকে তার কোনো সন্ধান ছিল না।

এদিকে, গত ২৯ আগস্ট রাতে যশোরে সরকারি সিটি কলেজ এলাকা থেকে পলিথিনে মোড়ানো এক তরুণীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। পরদিন ৩০ আগস্ট আমজেদ আলী লাশটি তার মেয়ের বলে শনাক্ত করেন। এ ঘটনায় যশোর কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা হয়। এ হত্যা রহস্য উদঘাটনে পুলিশ তদন্ত করতে থাকে। এরই মধ্যে গোপন সূত্রে পুলিশ জানতে পারে সাথী হত্যাকাণ্ডের শিকার হননি। তিনি জীবিত আছেন এবং প্রেমিক মান্নুর ধর্মপিতা সদর উপজেলার ইছালি এলাকার জলকার গ্রামে মিজানুর রহমানের বাড়িতে অবস্থা করছেন।

এসআই আমিরুজ্জামান আরো জানান, সাথীকে উদ্ধারে রোববার ভোররাতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। পরে তাকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে এক পর্যায়ে সে প্রকৃত ঘটনা খুলে বলে।

সাথী পুলিশকে জানিয়েছে, পুলিশ ও এলাকাবাসীর চোখ ফাঁকি দিতে এই হত্যার নাটক সাজানো হয়।

এদিকে, পলিথিনে মোড়ানো গলাকাটা লাশটি তাহলে কোন তরুণীর সেটি নিয়ে মানুষের মধ্যে কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, তারা পলিথিনে মোড়ানো লাশের রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে।

Shares