আজ বৃহস্পতিবার , ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বাউফলে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ বাউফল উপজেলা ও পৌর সেচ্ছাসেবক দলের আহব্বায়ক কমিটি ঘোষণা বাউফলে ইউএনও’র বিদায়ী সংবর্ধনা নালিতাবাড়ীতে জেলা শিক্ষা অফিসারের বিদ্যালয় পরিদর্শন বাউফলে বিএনপি’র ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত বাউফলে ছেলের বিচার চেয়ে বাবা মায়ের সাংবাদিক সম্মেলন বাউফলে জাতীয় মৎস সপ্তাহ শুরু হালুয়াঘাটে বজ্রপাতে মৃত্যু! বাবার লাশের পাশে দেড় বছরের শিশু ‘নুসাইবা’ হালুয়াঘাটে নির্মাণের বছরেই বক্স কালভার্ট ধ্বস! বাউফলে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া-মোনাজাত ভিক্ষের টাকা গণনা করছিলো ভিক্ষুক। ইমাম বাসের চাপায় মৃত্যু ঐ ভিক্ষুকের শোক দিবসে হালুয়াঘাটে বিজিবি’র ত্রাণ বিতরণ বাউফলে সফিউল বারী বাবু’র মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া-মোনাজাত করোনা টেস্ট করাতে অনিহা হালুয়াঘাটে করোনায় আক্তান্ত হয়ে ৯৬ বছরের বৃদ্ধের মৃত্যু। মোট মৃত্যু-৭

হালুয়াঘাটের কিডনী রোগে আক্রান্ত মেধাবী কলেজ ছাত্রী ‘সাথী’ আর নেই

প্রকাশিতঃ ৭:৩২ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৫, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৯১১ বার

ওমর ফারুক সুমনঃ সাড়ে চার বৎসরের অধিক সময় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে শেষ বিদায় নিল মেধাবী কলেজ শিক্ষার্থী “শিরিন নাহার সাথী”।বুধবার সকাল সাতটার সময় উত্তর খয়রাকুড়িস্থ (থানার দক্ষিনে) নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সাথী। অনেক শান্ত-ভদ্র-বিনয়ী ছিলেন মেয়েটি। দেখতে ছিলেন খুবই সুশ্রী।সকলের প্রিয় পাত্র ছিলেন।তার এক ছোট বোন কন্ঠশিল্পী সুমাইয়া আক্তার কাকলী। বাবা সিরাজুল ইসলাম একজন গাড়ী চালক। অনেক স্বপ্ন দেখতেন মেয়েটিকে নিয়ে। কিন্তু বিধির লীলায় সকলের স্বপ্ন ভেঙ্গে দিয়ে পরকালের দেশে চলে গেলেন ফুটফুটে মেয়েটি। সাথী’র অকাল মৃত্যুতে হালুয়াঘাটের সকল শ্রেণী পেশার মানুষের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে। সেই সাথে সাথীর পরিবার হারায় একটি তাঁজা প্রাণ। সাথী হালুয়াঘাট শহীদ স্মৃতি ডিগ্রী কলেজের স্নাতক বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। এক পর্যায়ে ডাক্তারী পরীক্ষা করে জানতে পারেন তার দুইটি কিডনি বিকল হয়ে যায়। সাথীর এই দূরারোগ্য ব্যাধীতে অনেকেই সাহায্য সহযোগীতায় এগিয়ে এসেছিলেন। কন্ঠশিল্প রিংকু সংগিত পরিবেশন করে সমস্ত টাকা সাথীর চিকিৎসা কাজে ব্যয় করেন। আপামর সকল শ্রেণীর মানুষ সাহায্যে এগিয়ে আসেন।কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি তার। সকলের মনে দাগ কেটে বিদায় নেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল প্রায় ২৩ বৎসর। সে হালুয়াঘাট আদর্শ মহিলা মহাবিদ্যালয় থেকে ২০১০ সালে এইচ এস সি পাশ করেন। এই্চ এস সি পাশ করার পর স্নাতক শ্রেণীতে ভর্তির বছর দুই পরেই দূরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হন সাথী। তার দুটি কিডনীই বিকল হয়ে যায়। এ অবস্থায় সাথীর পরিবার কিডনী ইন্সটিটিউটের তত্বাবধানে দীর্ঘ সাড়ে চার বছরে মেয়েকে বাঁচিয়ে তুলতে ২০-২৫ লক্ষ টাকা খরচ করেন।শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর কাছে পরাজিত হন মেধাবী এই শিক্ষার্থী।

Shares