আজ সোমবার , ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাচনে মোশারফ, ফরিদ, আশুরা বিজয়ী গরীবের আশার বাতিঘর হাজী মোশারফ হালুয়াঘাটে পল্লী বিদ্যুতের খুঁটি পুঁততে গিয়ে মৃত্যু-১, আহত-১ জাতীয় ভাবে”স্বপ্নজয়ী মা” নির্বাচিত হলেন জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জের অবিরণ নেছা ৬১০৮ ভোটের ব্যবধানে হামিদ বিজয়ী। শেখ রাসেল ও মনোয়ারা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হালুয়াঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনঃ প্রবীণে প্রবীণে লড়াই এম্বুলেন্সে করে মাদক পাচারকালে ২৪০ বোতল ভারতীয় মদসহ একজন আটক এমপি মাহমুদুল হক সায়েমকে সি.আই.পি শামিমের সংবর্ধনা হালুয়াঘাটে ঈদে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হল স্বামীসহ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালুয়াঘাটের স্থলবন্দর দিয়ে ২৭টি পণ্যের আমদানী রপ্তানীর পরিকল্পনা-এমপি সায়েম হালুয়াঘাটে ২৭ হাজার দুস্থ অসহায় পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ১৩ বছর পর পদত্যাগ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হালুয়াঘাটে ফেইসবুক গ্রুপে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতা। পুরস্কার বিতরণ ‘কৃষ্ণনগরের কৃষ্ণকেশীর ‘বেহিসেবি রঙ.. হিমাদ্রিশেখর সরকার হালুয়াঘাট থেকে ফুলপুর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণসহ সড়ানো হচ্ছে অস্থায়ী বাস কাউন্টার

২৬ বছর বয়সের সময় নারী হলেন ৪১ সন্তানের জননী

প্রকাশিতঃ ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ | আগস্ট ৩১, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৪৭৪ বার

ডেস্ক রিপোর্টঃ ভিক্টোরিয়া এন্ড্রুস, ২৬ বছর বয়সী একজন বৃটিশ নারী। ক’দিন আগেও জানতেন তিনি বন্ধ্যা, মা হতে পারবেন না। ডাক্তার বলে দিয়েছেন পলিসিস্টিক ওভারিসিন্ড্রোম নামক রোগের কারণে তিনি মা হতে পারবেন না। মাতৃত্বের স্বাদ কে না পেতে চায়। তাই সন্তানের স্বাদ মেটাতেই কিনতে শুরু করলেন পুতুল। পুতুলের আদর-যত্ন করেই সন্তানের আক্ষেপ মিটিয়ে যাচ্ছিলেন।
এ যেন দুধের স্বাদ ঘোলে মেটানোর প্রচেষ্টা।

রিবন নামে এক প্রকার পুতুল আছে, যা দেখতে প্রায় আসল বাচ্চার মতো। এন্ড্রুস এই রিবন পুতুলে সাজিয়ে ফেলেন তার পুরো ঘর। সংগ্রহ করতে করতে এর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ায় প্রায় শতকের কাছাকাছি। আর এই পুতুল কিনতে তার খরচ হয়েছে প্রায় ৬০ লাখ টাকা।

নকল বাচ্চা পালতে পালতে কখন যে আসল বাচ্চার মা হতে চলেছেন সেটা খেয়াল-ই করেননি। গত মে মাসে এই ভদ্রমহিলা ‘টোবাইস’ নামে এক পুত্র সন্তানের জননী হয়েছেন।

হঠাৎ করে পেটে ব্যথা অনুভব করেন। ভেবেছিলেন পেটে আলসার হয়েছে। সপ্তাহ খানেক বাদে ডাক্তারের কাছে গেলে ডাক্তার রক্ত পরীক্ষা করতে বলেন। রিপোর্ট দেখে ডাক্তার অভিনন্দন জানিয়ে বলেন ‘আপনি সাত সপ্তাহের গর্ভবতী’। একদম বিশ্বাস করতে পারছিলেন না তিনি। এর পরে আবারো আল্ট্রাসনোগ্রাম করান নিশ্চিত হওয়ার জন্য। সেখানকার রিপোর্ট থেকেও একই তথ্য আসে।

টোবাইস’র জন্মের পর এখন পুতুলের সংখ্যা কমে গিয়েছে। বাচ্চার খরচ মেটাতে ৪০টির মতো পুতুল প্রায় ১০ লাখ টাকায় বিক্রি করেন। এখন টোবাইস’র আরো ৪০টি ভাইবোন বাড়িতে আছে। এদের মধ্যে একজনকে টোবাইস নিজের খেলার সঙ্গী বানিয়ে নিয়েছেন। বাকিদের স্থান হয়েছে সেলফে।

এন্ড্রুস বলেন, ‘আমার জীবনে সন্তানের মা হওয়ার ইচ্ছা আছে, হয়তো আরো চার সন্তানের মা হবো। যদিও এখন আমি ৪১ সন্তানের মা’।

Shares