আজ মঙ্গলবার , ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাটে নবান্নকে ঘিরে পিঠা পুলির উৎসব! কোভিড-১৯ প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে মেয়রের আহব্বান বাউফলে তারেক রহমানের জন্মবার্ষিকী পালিত বাউফলে প্রায়তঃ শিক্ষকের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া-মোনাজাত আত্মহত্যার পরও সূদের টাকার জন্য ফোন! ত্রিশালে সড়ক দূরঘটনায় একজন নিহত চার জন আহত ত্রিশালে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত আমতলীতে মাদ্রাসা মাঠে ধান চাষ বরগুনায় ১০ দোকান পুড়ে ছাই হৃদয় হত্যাকাণ্ডে জড়িত প্রত্যেকের ফাঁসি চান পরিবার আইপিএলে ,নিঃস্ব হচ্ছে অনেক পরিবার ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শাহ্ আহসান হাবীব বাবুর জন্ম দিন পালন বরগুনায় সেরা সম্পাদককে সংবর্ধনা বরগুনা বেতাগীর আলোচিত বজলু হত্যা মামলার ২ নম্বর আসামি আটক ত্রিশালে শহীদ বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান সড়ক উদ্বোধন

‘মানুষের উপকার করার জন্য এমপি হতে চাই’

প্রকাশিতঃ ৬:১১ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২৯, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৩২৫ বার

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: বানিয়াচং ও আজমিরীগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত হবিগঞ্জ-২ সংসদীয় আসন। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো থেকে প্রায় ডজন খানেক মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থী এ আসনে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে ভোটের মাঠে রয়েছেন একজন সাংবাদিকও। তিনি কোন রাজনৈতিক দলের নয়, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন।

জাতীয় দৈনিক আমার সংবাদ পত্রিকার যুগ্ম সম্পাদক সাংবাদিক আফসার আহমেদ রূপক মঙ্গলবার (২৮ আগস্ট) বিকালে বানিয়াচং বাজারে আগাম নির্বচনী জনসভা করে প্রচারনা শুরু করেছেন। এর আগেও তিনি দুই বার এমপি প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, নিজে বড়লোক হওয়ার জন্য নয়, মানুষকে আরো বেশি উপকার করার জন্য আমি এমপি হতে চাই।

স্বতন্ত্র এমপি প্রার্থী বলেন- বড়লোক হতে চাইলে এমপি না হয়েই হলুদ সাংবাদিকতা করে লাখ লাখ টাকা কামাই করে হতে পারি। কেউ টেরও পাবেনা। কিন্তু মৃত্যুর পর হারামের টাকা আরাম করে পরিবার-পরিজন খাবে আর কবরে আমাকে ফেরেস্তাদের মার খেতে হবে। তাই আমি সুযোগ থাকা সত্তেও অবৈধ উপার্জন করিনা।

সাংবাদিক রূপক তার বক্তৃতায় বলেন, আমার প্রতিদ্বদিতায় এমপি হবার আগে আমার মত মানুষের উপকার ও এলাকার উন্নয়ন করে দেখাতে পারেননি। আমি এমপি না হয়েও করে দেখাচ্ছি। আমি শুধু রোগীদের চিকিৎসাই করাচ্ছিনা। আমি মানুষের সব ধরণের কাজ করছি।

তিনি বলেন- আমি সৌদিআরবে গিয়ে নির্যাতনের শিকার হওয়া নারীদের উদ্ধার করে দেশে ফেরত এনেছি। আমি লিবিয়ায় যুদ্ধে বিপদে পড়া বাঙালীদের যাদেরকে সরকার এদেশের নাগরিক বলেই স্বীকার করেনি তাদেরকে এদেশের নাগরিক প্রমাণ করিয়ে দেশে ফেরত আনিয়েছি। আমি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নির্যাতন থেকে অসংখ্য ‘শানমেশিন’ চালককে রক্ষা করেছি। আমি ওয়ান এলিভেনের সময় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পত্রিকায় রিপোর্ট করে আজকের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে জেলখানা থেকে পিজি হাসপাতালে নিয়েছি। একই সময় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পত্রিকায় রিপোর্ট করে তারেক রহমানকে জেলখানা থেকে স্কয়ার হাসপাতালে নিয়েছি। আমি পত্রিকায় রিপোর্ট করে এরিককে বিদিশার কাছ থেকে এরশাদের কোলে পাঠিয়েছি।

এমপি প্রার্থী রূপক বলেন, আমার প্রচেষ্টায় বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ শরীফ উদ্দিন সড়কের প্রথম সড়কটি নির্মিত হয়েছে। আমার তদবিরে ৫৮ লাখ টাকা ব্যয়ে জনাব আলী কলেজের নতুন ভবন নির্মিত হয়েছে। আমার তদবিরে আইডিয়াল কলেজের একটি সাবজেক্টের অনুমোদন হয়েছে এবং আরো একটি সাবজেক্ট অনুমোদন হওয়ার পথে। শুধু বাংলাদেশ এবং বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জের মানুষেরই নয় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের প্রবাসী বাঙালীরা উপকারের জন্য আমাকে ফোন দেন আর আমি তাদের উপকার করি। এক আমেরিকা প্রবাসী আমাকে ফোন দিয়ে জানালেন ওই দেশে তার চিকিৎসা করাতে বাংলাদেশের টাকায় ২ কোটি প্রয়োজন কিন্তু এত টাকা তার নেই। আমি তাকে বাংলাদেশে এনে পিজি হাসপাতালে ১০ টাকার টিকেট কাটিয়ে ডাক্তার দেখিয়ে সেই অপারেশন মাত্র ১০ হাজার টাকায় করিয়েছি। কয়েক মাস পূর্বে আমি বানিয়াচংয়ের এক গরীব মহিলার গলার ক্যান্সারের অপারেশন করিয়েছি বিনা পয়সায়। হাসপাতাল থেকে রিলিজ দিয়ে বাড়ী পাঠানোর পর এখন ওই মহিলা দামী ঔষধ কিনে খেতে পারেনা। আর্থিক সাহায্যের জন্য সমাজসেবা অফিসে আবেদন করে পায়নি। সেটা পাইয়ে দিতে এখন আমাকে অধিদপ্তরের ডিজি অথবা মন্ত্রণালয়ে দৌড়াতে হবে। যদি আমি এমপি থাকতাম তাহলে সরাসরি নিজেই দিতে পারতাম। মানুষের এসব উপকার করার জন্যই আমি এমপি হতে চাই।

তিনি বলেন- মানুষ বুঝানোর সুযোগ পাইনি বলে প্রথম বারের মত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমি ফেল করেছি। পরবর্তীতে কিছুটা বুঝানোর সুযোগ পাওয়ায় গত নির্বাচনে অনেক কেন্দ্রে আমি আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীর চেয়ে ডাবল ভোট পেয়েছি। সরকার দলীয় নেতা-কর্মীরা কেন্দ্র দখল করে জাল ভোট দেয়ায় আমি গত নির্বাচনেও জয়ী হতে পারিনি। আমি নির্বাচনে কেন্দ্র দখল ও জাল ভোট প্রতিরোধ করতে মানুষ গ্রামে গ্রামে রূপক হেল্পক্লাব গঠন করছেন। তাই আগামী নির্বাচনে আমার বিজয় কেউ ছিনিয়ে নিতে পারবে না।

ক্বারী কমর উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও কবি আজিজুল হকের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন- বানিয়াচং প্রেসক্লাবের সেক্রেটারী ইমদাদুল হোসেন খান, মুক্তিযোদ্ধা মনজিল মিয়া, কবি এমআর ঠাকুর, বানিয়াচং শিক্ষা সচেতন পরিষদের সেক্রেটারী ছাব্বির আহমেদ চৌধুরী ও উপকারভোগী রাজিব মিয়া প্রমূখ।

Shares