আজ শুক্রবার , ৫ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাটের মামুন বাফুফে’র ক্যাপ্টেন নির্বাচিত হওয়ায় সংবর্ধনা ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে পৃথক স্থানে ট্রেনে কাটা পড়ে ২জন নিহত এমপি’র পক্ষে হালুয়াঘাট ধান্য ব্যবসায়ী সমিতির কম্বল বিতরণ ধোবাউড়ায় ট্রাক-হোন্ডা সংঘর্ষে নিহত-২, চালক ও হেলপার আটক বাউফলে ইউপি চেয়ারম্যানের ওপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি হালুয়াঘাটে ঝরে পড়া শিশুরা পাবে শিক্ষার সুযোগ। আসছে শিক্ষক নিয়োগও হালুয়াঘাটে স্বামীর আত্নহত্যা দেখে স্ত্রীও বিষ খায়! দুজনেরই মৃত্যু হালুয়াঘাটে স্বামী-স্ত্রীর আত্নহত্যা রাহেলা হযরত মডেল স্কুলে প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে ভাষা শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধাঞ্জলি ভাষা শহীদদের প্রতি কংশ টিভির পরিবার ও গণমাধ্যম কর্মীদের শ্রদ্ধাঞ্জলী ফুটবল ফাইনাল টুর্নামেন্টে বিজয়ী মধুপুর একাদশ স্পোটিং ক্লাব ২৮ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়লো ময়মনসিংহ জেলার শ্রেষ্ট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ত্রিশালের মোস্তাফিজুর রহমান হালুয়াঘাটে পিকনিকের বাস উল্টে আহত-৮

টাঙ্গাইলে যৌতুক না পেয়ে গৃহবধুকে পুড়িয়ে হত্যা

প্রকাশিতঃ ১:৪৬ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২৪, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২০১ বার

অনলাইন ডেস্কঃ টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে যৌতুক না পেয়ে শাপলা বেগম (২২) নামে এক গৃহবধুকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার শশুর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। ওই গৃহবধু উপজেলার সল্লা ইউনিয়নের নরদহী চরপাড়া গ্রামের রাব্বি ইসলামের স্ত্রী ও একই গ্রামের বেল্লাল হোসেনের মেয়ে।

এলাকাবাসী জানান, উপজেলার নরদহী গ্রামের রাব্বী ইসলামের বাড়িতে মঙ্গলবার রাত্র আনুমানিক ১টার দিকে চিৎকার শুনতে পান স্থানীয়রা। তারা ঘরের ভিতরে গিয়ে দেখেন আগুনে শরীরের অর্ধক অংশ পুরে গেছে শাপলার । এসময় তার স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। শ্বশুর-শ্বাশুড়িও ছিলো অন্য ঘরে। পরে অজ্ঞান অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্মরত  চিকিৎসক তাকে দ্রুত ঢাকা মেডিক্যালে নেয়ার কথা বলেন।

পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে বুধবার রাতে চিকিংসাধীন অবস্থায় বার্ণ ইউনিটে তার মৃত্যু হয়।

এলাকাবাসী আরো জানান, আমরা যখন ঘরে ঢুকি তখন দেখি শুধু তার শরীরে আগুন, কিন্তু তার একটু পাশেই খাঁট ও পাশের আলনা ভর্তি কাপড়  রয়েছে। সেখানে কোন আগুন লাগেনি। যদি অন্য কিছুতে আগুন লাগতো তাহলে অবশ্যই খাঁট ও আলনাতে রাখা কাপড়ে আগুন লাগতো। শাপলাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে।

নিহতের মা মর্জিনা বেগম জানান, আমার মেয়েকে  প্রতিনিয়ত যৌতুকের জন্য নির্যাতন করা হতো। সে আমাকে এবং আমার ছেলের ফোনে ফোন দিয়ে সব বলতো। ঘটনার আগের দিন এনিয়ে দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়।  যৌতুক না পেয়েই আমার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে। আমি হত্যাকারীর বিচার চাই।

এ বিষয়ে কালিহাতী থানার ওসি মীর মোশারফ হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অাগুনে পুরে মৃত্যুর বিষয়ে এখন পর্যন্ত কেউ কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Shares