আজ শুক্রবার , ৫ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

হালুয়াঘাটের মামুন বাফুফে’র ক্যাপ্টেন নির্বাচিত হওয়ায় সংবর্ধনা ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে পৃথক স্থানে ট্রেনে কাটা পড়ে ২জন নিহত এমপি’র পক্ষে হালুয়াঘাট ধান্য ব্যবসায়ী সমিতির কম্বল বিতরণ ধোবাউড়ায় ট্রাক-হোন্ডা সংঘর্ষে নিহত-২, চালক ও হেলপার আটক বাউফলে ইউপি চেয়ারম্যানের ওপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি হালুয়াঘাটে ঝরে পড়া শিশুরা পাবে শিক্ষার সুযোগ। আসছে শিক্ষক নিয়োগও হালুয়াঘাটে স্বামীর আত্নহত্যা দেখে স্ত্রীও বিষ খায়! দুজনেরই মৃত্যু হালুয়াঘাটে স্বামী-স্ত্রীর আত্নহত্যা রাহেলা হযরত মডেল স্কুলে প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে ভাষা শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধাঞ্জলি ভাষা শহীদদের প্রতি কংশ টিভির পরিবার ও গণমাধ্যম কর্মীদের শ্রদ্ধাঞ্জলী ফুটবল ফাইনাল টুর্নামেন্টে বিজয়ী মধুপুর একাদশ স্পোটিং ক্লাব ২৮ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়লো ময়মনসিংহ জেলার শ্রেষ্ট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ত্রিশালের মোস্তাফিজুর রহমান হালুয়াঘাটে পিকনিকের বাস উল্টে আহত-৮

নায়ক ফারুকের জন্মদিন আজ

প্রকাশিতঃ ৩:৪৮ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৮, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ১৯৯ বার

বিনোদন ডেস্ক: আকবর হোসেন পাঠান দুলু। বাংলা চলচ্চিত্রে নায়ক ফারুক নামেই পরিচিত তিনি। চলচ্চিত্রে অভিনয় করার সুবাদে মিয়া ভাই খ্যাতি পেয়েছেন নায়ক ফারুক। ভক্ত, শুভাকাঙ্ক্ষী ও চলচ্চিত্র অঙ্গনের মানুষজন তাকে মিয়া ভাই বলেই সম্বোধন করেন।

তিনি একাধারে চলচ্চিত্র অভিনেতা, প্রযোজক ও ব্যবসায়ী। আজ এই জনপ্রিয় নায়কের জন্মদিন। পূর্বপশ্চিম পরিবারের পক্ষ থেকে নায়ক ফারুকের জন্মদিনে রইলো শুভেচ্ছা।

১৯৪৮ সালের ১৮ আগস্ট ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন ফারুক। তার বাবা আজগার হোসেন পাঠান। এ নায়কের শৈশব-কৈশোর ও যৌবনকাল কেটেছে পুরান ঢাকায়। পাঁচ বোন ও দুই ভাইয়ের মধ্যে তিনি সবার ছোট।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভক্ত এই চিত্রনায়ক ১৫ আগস্টের সেই নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর আর কখনোই নিজের জন্মদিন পালন করেননি।সংবাদমাধ্যমকে ফারুক বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান খুব আদর করতেন তাকে। এই আগস্টেই এই মহান নেতাকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল। তাই আগস্ট মাসটি শোকের মাস হিসেবেই পালন করেন ফারুক।

ফারুক স্কুল জীবন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন। ১৯৬৬ সালে ছয় দফা আন্দোলনে যোগ দেন এবং এ সময়ে তার নামে প্রায় ৩৭টি মামলা দায়ের করা হয়। এরপর ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহন করেন।

১৯৭১ সালে এইচ আকবর পরিচালিত `জলছবি` চলচ্চিত্রের মাধ্যমে ফারুকের অভিষেক ঘটে। তার বিপরীতে ছিলেন আরেক কিংবদন্তি নায়িকা কবরী। এর পর ১৯৭৩ সালে খান আতাউর রহমানের `আবার তোরা মানুষ হ`, ১৯৭৪ সালে নারায়ণ ঘোষ মিতা পরিচালিত `আলোর মিছিল`-এ অভিনয় করে আলোচনায় আসেন।

১৯৭৫ সালে সুপার ডুপার হিট `সুজন সখি` ও `লাঠিয়াল` চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। এবং সে বছর `লাঠিয়াল` চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য সেরা পার্শ্ব চরিত্রে অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। এরপরে ১৯৭৬ সালে `সূর্যগ্রহণ` ও `নয়নমনি`, ১৯৭৮ এ শহীদুল্লাহ কায়সারের উপন্যাস থেকে নির্মিত `সারেং বৌ`, আমজাদ হোসেন এর `গোলাপী এখন ট্রেনে` সহ অনেক কালজয়ী চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন।

চলচ্চিত্রে বিশেষ অবদান রাখার জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৬ তাকে আজীবন সন্মাননা দেয়া হয়।

Shares