আজ শুক্রবার , ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বাউফলে সাবেক এমপি শহীদুল আলম তালুকদারের মতবিনিময় সভা হালুয়াঘাটে নবান্নকে ঘিরে পিঠা পুলির উৎসব! কোভিড-১৯ প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে মেয়রের আহব্বান বাউফলে তারেক রহমানের জন্মবার্ষিকী পালিত বাউফলে প্রায়তঃ শিক্ষকের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া-মোনাজাত আত্মহত্যার পরও সূদের টাকার জন্য ফোন! ত্রিশালে সড়ক দূরঘটনায় একজন নিহত চার জন আহত ত্রিশালে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত আমতলীতে মাদ্রাসা মাঠে ধান চাষ বরগুনায় ১০ দোকান পুড়ে ছাই হৃদয় হত্যাকাণ্ডে জড়িত প্রত্যেকের ফাঁসি চান পরিবার আইপিএলে ,নিঃস্ব হচ্ছে অনেক পরিবার ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শাহ্ আহসান হাবীব বাবুর জন্ম দিন পালন বরগুনায় সেরা সম্পাদককে সংবর্ধনা বরগুনা বেতাগীর আলোচিত বজলু হত্যা মামলার ২ নম্বর আসামি আটক

গোলাম সারওয়ারকে সহকর্মীদের শেষ বিদায়

প্রকাশিতঃ ৫:০১ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৬, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ১২৬ বার

নিজস্ব প্রতিবেদক: একুশে পদকপ্রাপ্ত কিংবদন্তি সাংবাদিক, দৈনিক সমকালের সম্পাদক ও বিশিষ্ট গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব গোলাম সারওয়ারের চতুর্থ জানাজা সম্পন্ন হয়েছে । কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে গোলাম সারওয়ারের মরদেহ জাতীয় প্রেস ক্লাবে নেওয়া হয়। প্রেসক্লাবে নিয়ে যাওয়া হলে তার পাঁচ দশকের এই আড্ডাস্থলে সহকর্মীরা তাকে শেষ বিদায় জানান।

বৃহস্পতিবার (১৬ আগস্ট) দুপুর ১টার দিকে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সে করে গোলাম সারওয়ারের মরদেহ জাতীয় প্রেস ক্লাবে নেওয়া হয়। সেখানে প্রথমেই রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের পক্ষ থেকে গোলাম সারওয়ারের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এরপর প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয় গোলাম সারওয়ারের প্রতি।

এ সময় গোলাম সারওয়ারের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বক্তব্য রাখেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, সহসভাপতি ও দৈনিক যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলম, সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, তথ্যপ্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, বিএফইউজের সভাপতি মোল্লা জালাল, সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ আনাম, সমকালের প্রকাশক একে আজাদ ও সাংবাদিক নেতা মনজুরুল আহসান বুলবুল প্রমুখ।

প্রয়াত গোলাম সারওয়ারের পরিবারের পক্ষ থেকে বাবার জন্য দোয়া চান বড় ছেলে গোলাম শাহরিয়ার রঞ্জু।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, শ্রদ্ধাভাজন প্রখ্যাত সাংবাদিক গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুতে আমরা দুঃখিত ও শোকাহত। দীর্ঘদিন তার সঙ্গে কাজ করেছি। তিনি একাধারে নির্ভীক সাংবাদিক। তাকে অনুসরণ করে চলমান পরিস্থিতিতে আমরা এগিয়ে যাব।

বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। তিনি বলেন, পেশাগত ও ব্যক্তিগত দিক থেকে তিনি একজন অনন্য মানুষ ছিলেন। আমরা তাকে বড় ভাই, অভিভাবক হিসেবে পেয়েছি। তার রুহের মাগফিরাত কামনা করছি।

প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান বলেন, গোলাম সারওয়ার ভাই আমাদের মাঝ থেকে শারীরিকভাবে চলে গেছেন। আমরা তার জন্য দোয়া কামনার মধ্য দিতে তাকে স্মরণ করছি।

প্রেসক্লাবের সহসভাপতি ও দৈনিক যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলম বলেন, গোলাম সারওয়ার জাতীয় প্রেসক্লাবের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলেন। তিনি কেবল স্থায়ী সদস্যই ছিলেন না, তিনি ছিলেন প্রেসক্লাবের প্রতিদিনের সদস্য। তিনি এমন এক ব্যক্তি যাকে প্রেসক্লাব থেকে আলাদা করে ভাবাই যায় না। প্রেসক্লাবের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডসহ সবকিছুর সঙ্গে তিনি জড়িয়ে আছেন।

সাইফুল আলম বলেন, তাকে অভিভাবক, নেতা ও বন্ধু হিসেবে পেয়েছি। তার চলে যাওয়ায় আমরা দারুণভাবে শোকাহত। তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি আমরা সমবেদনা জানাই।

প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুতে পুরো সাংবাদিক সমাজ আজ শোকাহত। বিপদে-আপদে তাকে পাশে পেয়েছি। তিনি সবসময় পরামর্শ দিয়ে আমাকে সহযোগিতা করেছেন। প্রেসক্লাবে না পেলে তার অফিসে গিয়েও পরামর্শ নিয়েছি। দীর্ঘদিন তার অভাব অনুভব করব।

গোলাম সারওয়ারের অমায়িক ব্যবহার সাংবাদিকতাকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেন তথ্যপ্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। তিনি বলেন, গোলাম সারওয়ারের প্রতি আমার বিনম্র শ্রদ্ধা। তার সঙ্গে যখন শেষ দেখা হয়েছিল, তখন তার সেই হাস্যোজ্জ্বল মুখের কথা এখনও মনে পড়ে।

তারানা হালিম বলেন, মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের একজন হিসেবে আমরা তাকে চিরকাল স্মরণে রাখব।

সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম বলেন, গোলাম সারওয়ারের চলে যাওয়া মানেই এক বিরাট শূন্যতা। পেশাগত দিক থেকে তার ভূমিকা অনন্য। সম্পাদক পরিষদ গঠনের সময় আমরা নানাভাবে তার সহযোগিতা পেয়েছি।

মাহফুজ আনাম বলেন, গোলাম সারওয়ার ছিলেন বিনয়ী মানুষ। তিনি পেছন থেকে কাজ করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু আমরা তাকে অনেকটা জোর করেই সভাপতির দায়িত্ব দিয়েছিলাম। তার নেতৃত্বে পরিষদটি সম্পূর্ণতা লাভ করেছে।

জানাজার পর পরই ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ বরেণ্য সাংবাদিককে গার্ড অব অনার দেয়া হয়। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ তাকে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রেস সচিব এহসানুল করিম ও উপ-প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন।

Shares