আজ শুক্রবার , ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

বাউফলে সাবেক এমপি শহীদুল আলম তালুকদারের মতবিনিময় সভা হালুয়াঘাটে নবান্নকে ঘিরে পিঠা পুলির উৎসব! কোভিড-১৯ প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে মেয়রের আহব্বান বাউফলে তারেক রহমানের জন্মবার্ষিকী পালিত বাউফলে প্রায়তঃ শিক্ষকের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া-মোনাজাত আত্মহত্যার পরও সূদের টাকার জন্য ফোন! ত্রিশালে সড়ক দূরঘটনায় একজন নিহত চার জন আহত ত্রিশালে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত আমতলীতে মাদ্রাসা মাঠে ধান চাষ বরগুনায় ১০ দোকান পুড়ে ছাই হৃদয় হত্যাকাণ্ডে জড়িত প্রত্যেকের ফাঁসি চান পরিবার আইপিএলে ,নিঃস্ব হচ্ছে অনেক পরিবার ত্রিশাল অনলাইন প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শাহ্ আহসান হাবীব বাবুর জন্ম দিন পালন বরগুনায় সেরা সম্পাদককে সংবর্ধনা বরগুনা বেতাগীর আলোচিত বজলু হত্যা মামলার ২ নম্বর আসামি আটক

আসামের নাগরিকপঞ্জী বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ককে ধ্বংস করে দেবে- মমতা

প্রকাশিতঃ ১১:১১ অপরাহ্ণ | আগস্ট ০৪, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ১৬৫ বার

অনলাইন ডেস্কঃ আসামের যে চূড়ান্ত খসড়া নাগরিকপঞ্জী প্রকাশিত হয়েছে সেটি বাংলাদেশের সম্পর্ককে ধ্বংস করে দেবে বলে মন্তব্য করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার ভারতের সংসদের বাইরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, আসামের নাগরিক পঞ্জী থেকে যে ৪০ লক্ষ মানুষের নাম বাদ দেওয়া হয়েছে তার ১ শতাংশ অনুপ্রবেশকারী হলেও হতে পারে। কিন্তু বিজেপি সকলকেই অনুপ্রবেশকারী হিসেবে তুলে ধরতে চাইছে। এই নাগরিকপঞ্জী প্রতিবেশী বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের যে সম্পর্ক রয়েছে তাকে ধ্বংস করে দেবে। আসামের নাগরিকপঞ্জী থেকে ৪০ লক্ষ মানুষের নাম বাদ দেওয়া নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছেন। গত তিন দিন ধরে তিনি রাজধানীতে সব বিরোধী দলের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে এর প্রতিবাদে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার ডাক দিয়েছেন।

বিরোধী দলগুলোকে একটি সম্মিলিত প্রতিনিধিদল আসামে পাঠানোর অনুরোধও জানিয়েছেন। এমনকি বিজেপির সাবেক মন্ত্রী যশবন্ত সিনহার সঙ্গে বৈঠক করে তাকে সেখানকার পরিস্থিতি স্বচক্ষে দেখে আসতে আসামে যাওয়ার অনুরোধ করেছেন। মমতা এদিন অভিযোগ করেছেন, পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার ৮৩৩ জনকে আসামের কারাগারে পুরে রাখা হয়েছে। মমতা মনে করেন, বিজেপি ভোটব্যাংকের রাজনীতি করছে। নাগরিকপঞ্জী গোটা পৃথিবীকেই ক্ষতিগ্রস্থ করবে। তিনি বলেছেন, সীমান্ত ব্যবস্থাপনা কেন্দ্রীয় সরকারের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর দেখার কথা কতজন সীমান্ত পেরিয়ে অনুপ্রবেশ করছে। অথচ অনুপ্রবেশের নামে তারা সাধারণ মানুষকে হয়রান করছে।

Shares