আজ বুধবার , ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার বিচারের দাবীতে আজ মানববন্ধন হালুয়াঘাটের শিমুলকুচি গ্রামে কামাল’র কুলখানি অনুষ্ঠিত হালুয়াঘাটে বৃদ্ধকে নির্যাতনের ঘটনায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ হালুয়াঘাটের ট্রলি উল্টে দুই বন্দর শ্রমিকের মৃত্যু, আহত ৬ মাছ ধরার জালে ঢিল ছোড়ায় খুন হন শিশু শিক্ষার্থী সুমন হালুয়াঘাটে ১ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে কুপিয়ে খুন এমপি’র কাছে নালিশ করায় বৃদ্ধকে পিটিয়েছে চেয়ারম্যান হালুয়াঘাটে প্রতারিত শত শত কৃষক বাউফলে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ বাউফল উপজেলা ও পৌর সেচ্ছাসেবক দলের আহব্বায়ক কমিটি ঘোষণা বাউফলে ইউএনও’র বিদায়ী সংবর্ধনা নালিতাবাড়ীতে জেলা শিক্ষা অফিসারের বিদ্যালয় পরিদর্শন বাউফলে বিএনপি’র ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত বাউফলে ছেলের বিচার চেয়ে বাবা মায়ের সাংবাদিক সম্মেলন

জনসনের পাউডার থেকে ক্যানসার, ৪৭০ কোটি ডলারের ক্ষতিপূরণের নির্দেশ

প্রকাশিতঃ ৩:৩৯ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৫, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ২০৫ বার

ডেস্ক রিপোর্টঃ জনসন অ্যান্ড জনসনের পাউডার থেকে ছড়িয়েছে ক্যানসার। মার্কিন ওই বহুজাতিক সংস্থার এই অপরাধ প্রমাণিত হওয়ার পরই সংস্থাকে ৪৭০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণের নির্দেশ দিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত।
অভিযোগকারী ২২ জন মহিলা ও তাঁদের পরিবারকে ওই ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আমেরিকার মিসৌরির একটি আদালতের এক জুরি। অভিযোগ, ওই কোম্পানির ট্যালকম পাউডার ও বেবি পাউডারে রয়েছে অ্যাসবেসটসের মতো ক্ষতিকারক পদার্থ। তা থেকেই ডিম্বাশয়ের ক্যানসার হওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। এমনকি ছয় জন মহিলার মৃত্যুও হয়েছে ক্যানসারের কারণে।
আদালতে গত ছয় সপ্তাহ শুনানি চলছে এই মামলার। প্রাথমিকভাবে ৫৫ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দিতে জনসন অ্যান্ড জনসনকে নির্দেশ দিয়েছেন মিসৌরির সেন্ট লুই আদালত।

এ ছাড়াও ৪১৪ কোটি ডলার শাস্তিমূলক জরিমানা হিসেবে ধার্য করা হয়েছে।
সংস্থার দাবি, কয়েক দশকের গবেষণার পর এই পাউডার যে সুরক্ষিত তা বোঝা গিয়েছে। জনসন অ্যান্ড জনসনের কথায়, তারা আদালতের রায়ে অত্যন্ত হতাশ এবং রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন জানানোর পরিকল্পনা করছে।
এদিক, সবমিলিয়ে ওই সংস্থার বিরুদ্ধে মোট নয় হাজার মামলা আদালতে জমা পড়েছে। শিশুদের জন্য জনসনের তৈরি পাউডারের বিরুদ্ধেও মামলা রয়েছে। অভিযোগকারীদের আইনজীবীরা বলেছেন, জনসনের ট্যালকম পণ্য ব্যবহারের ঝুঁকি সম্পর্কে গ্রাহকদের সচেতন করতে ব্যর্থ হয়েছে।
অন্যদিকে জনসনের আইনজীবীদের দাবি, সংস্থার ট্যালকম পাউডার নিরাপদ এবং পণ্যে ক্যানসার হওয়ার মতো ক্ষতিকারক কোনও উপাদান নেই। একই সঙ্গে আদালতের বিচারপ্রক্রিয়া অন্যায্য বলেও দাবি করেছে সংস্থাটি।
২০০৯ ও ২০১০ সালে মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন জনসন অ্যান্ড জনসনসহ আরো বেশ কয়েকটি কোম্পানির পাউডারের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা শুরু করে। অভিযোগকারী এক মহিলার আইনজীবী বলেন, ৪০ বছর ধরে জনসন অ্যান্ড জনসন ট্যালকম পাউডারের ব্যবসা করছে। তাদের পণ্যে ক্যান্সারের ঝুঁকির সতকর্তা উল্লেখ করা উচিৎ ছিল। কিন্তু তা করা হয়নি।

সংস্থার দাবি, নারীদের যৌনাঙ্গে ট্যালকম পাউডার ব্যবহারের কারণে ওভারিয়ান ক্যানসার তৈরির ঝুঁকি রয়েছে বলে তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল। তবে তাদের এই আশঙ্কা গবেষণায় প্রমাণিত হয়নি। তবে জনসনের বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত যতগুলো মামলা হয়েছে তার মধ্যে এই ক্ষেত্রেই আদালত তাদের সর্বোচ্চ পরিমাণ ক্ষতিপূরণের নির্দেশ দিয়েছে।
সূত্র: আনন্দবাজার

Shares