আজ শনিবার , ২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |

শিরোনাম

নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাচনে মোশারফ, ফরিদ, আশুরা বিজয়ী গরীবের আশার বাতিঘর হাজী মোশারফ হালুয়াঘাটে পল্লী বিদ্যুতের খুঁটি পুঁততে গিয়ে মৃত্যু-১, আহত-১ জাতীয় ভাবে”স্বপ্নজয়ী মা” নির্বাচিত হলেন জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জের অবিরণ নেছা ৬১০৮ ভোটের ব্যবধানে হামিদ বিজয়ী। শেখ রাসেল ও মনোয়ারা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হালুয়াঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনঃ প্রবীণে প্রবীণে লড়াই এম্বুলেন্সে করে মাদক পাচারকালে ২৪০ বোতল ভারতীয় মদসহ একজন আটক এমপি মাহমুদুল হক সায়েমকে সি.আই.পি শামিমের সংবর্ধনা হালুয়াঘাটে ঈদে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হল স্বামীসহ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালুয়াঘাটের স্থলবন্দর দিয়ে ২৭টি পণ্যের আমদানী রপ্তানীর পরিকল্পনা-এমপি সায়েম হালুয়াঘাটে ২৭ হাজার দুস্থ অসহায় পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ১৩ বছর পর পদত্যাগ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হালুয়াঘাটে ফেইসবুক গ্রুপে কোরআন তেলাওয়াত ও ইসলামী সংগীত প্রতিযোগিতা। পুরস্কার বিতরণ ‘কৃষ্ণনগরের কৃষ্ণকেশীর ‘বেহিসেবি রঙ.. হিমাদ্রিশেখর সরকার হালুয়াঘাট থেকে ফুলপুর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণসহ সড়ানো হচ্ছে অস্থায়ী বাস কাউন্টার

চাঁপাইনবাবগঞ্জে পেটে সন্তানসহ স্ত্রীকে পিটিয়ে মারলো মাদকাসক্ত স্বামী!

প্রকাশিতঃ ৩:২০ অপরাহ্ণ | জুন ৩০, ২০১৮ । এই নিউজটি পড়া হয়েছেঃ ৫৪৩ বার

চাপাইনবাবগঞ্জ সংবাদদাতাঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে তিন মাসের বাচ্চা পেটে নিয়ে মাতাল স্বামী কর্তৃক মর্মান্তিকভাবে হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছেন নুসরাত জাহান (২০)। পাষন্ড ওই ঘাতকের নাম মো. সায়েম আলী (২৫)। সে উপজেলার সদর ইউনিয়নের ফুটানীবাজার নামোহোসেনভিটা গ্রামের মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে।

বৃহস্পতিবার নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুৃলিশ। এবং ঘাতক স্বামীকেও আটক করেছে তারা।

নিহতের স্বজন সূত্রে জানা যায়, গোমস্তাপুর উপজেলার রোহনপুর ইউনিয়নের বাবুরঘোন গ্রামের আবুল কালামের মেয়ে নুসরাতের সাথে মাত্র চার মাস আগে বিয়ে হয় মাদকাসক্ত সায়েমের। সে এর আগে আরো দু’টি বিয়ে করেছিল। তার আগের এক স্ত্রীর সংসারে একটি সন্তান রয়েছে। মাঝখানে প্রায় পাঁচ বছর সে কোরিয়ায় অবস্থান করে। কোরিয়া থেকে দেড় বছর আগে দেশে ফিরে আসে সায়েম। এরপর নুসরাতকে বিয়ে করে। সে এখন ৩ মাসের অন্তস্বত্বাও। নুসরাত ছিল রুপে-গুণে অসাধারণ। তবুও নেশা করে প্রায় রাতে ঘরে ফিরেই নুসরাতকে মারধর করতো সায়েম। এ নিয়ে একাধিকবার দু’পরিবারের মধ্যে আলোচনা হলেও কোন সমাধান হয়নি।

তবে, স্থানীয় একটি অসমর্থিত সূত্র বলছে, নুসরাত ছিলেন বেশ সুন্দরী। বেশী সুন্দর হওয়ায় স্ত্রীকে বিশ্বাসই করতো না মাদকাসক্ত সায়েম। সন্দেহ থেকেই যখন-তখন মধ্যযুগীয় কায়দায় হামলে পড়তো নুসরাতের উপর।

সর্বশেষ, বুধবার কোন কারণ ছাড়াই সায়েম নুসরাতকে বেধড়ক পেটাতে থাকলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

পরে নুসরাতের স্বামী ও দেবররা মুমুর্ষ অবস্থায় তাকে গতকাল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরে এ ঘটনায় সায়েমসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘাতক স্বামী সায়েমকে গ্রেফতার করে।

ভোলাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফাছির উদ্দীন বলেন, এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। নুসরাতের ঘাতক হিসেবে তার স্বামীকে গ্রেফতার করেছি। এ ব্যাপারে আইনী প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

Shares